শনিবার, নভেম্বর ২৬, ২০২২

এবার আফগান নারীদের পার্কে যাওয়া নিষিদ্ধ করলো তালেবান

প্রকাশিত:

আফগানিস্তানে ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণের পর সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান একের পর এক নিষেধাজ্ঞা জারি করছে দেশটির নারীদের বিরুদ্ধে। এবার রাজধানী কাবুলের পার্ক ও বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে নারীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করলো তালেবান সরকার। এমনকি আফগান নারীরা জিমেও যেতে পারবেন না।

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) দেশটির পূণ্য সম্প্রসারণ ও পাপ প্রতিরোধ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ আকিফ মোহাজের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তালেবানের দাবি, দেশটির পার্কগুলোতে ইসলামি আইন অনুসরণ করা হচ্ছে না।

২০২১ সালে তালেবান ক্ষমতা নেওয়ার পর নারীর অধিকার ও স্বাধীনতার বিষয়গুলো কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

তালেবান সরকারের নিয়ম অনুযায়ী, আফগান নারীরা প্রতি সপ্তাহে তিন দিন পার্কে যেতে পারতেন। এই তিন দিন হলো রবিবার, সোমবার, মঙ্গলবার। বাকী চারদিন পুরুষরা। তবে এখন পুরুষ আত্মীয়-স্বজন বা অভিভাবকরা সঙ্গী হলেও নারীদের পার্কে প্রবেশে অনুমতি দেওয়া হবে না।

মুখপাত্র আকিফ মোহাজের এ বিষয়ে জানান, ‘আমরা এটা করেছি কারণ গত ১৫ মাস ধরে দেখা গেছে যে, নারী-পুরুষ অবাধে পার্কে ঘোরাফেরা করছেন, জিমে যাচ্ছেন। তাদের অনেকেই ইসলামিক শরিয়া আইন মানছেন না’। তিনি আরও বলেন, এই নিষেধাজ্ঞা সব নারীর জন্য। তাদের সঙ্গে মাহরাম বা পুরুষ আত্মীয়-স্বজন থাকলেও কাবুলের পার্ক, জিম ও বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে প্রবেশ করতে পারবেন না।

বিনোদন পার্কগুলোতে মূলত অনেকেই সন্তানদের নিয়ে পুরো পরিবার মিলে ঘুরতে বের হন। বিশেষ করে যেসব পার্কে বাচ্চাদের জন্য খেলার ব্যবস্থা রয়েছে।

তালেবানের এই নতুন নিষেধাজ্ঞা আপাতত শুধু কাবুলে বলবৎ হলেও, এর আগে দেখা গেছে যে নারীদের ওপর যেসব নিষেধাজ্ঞা এসেছে পরে তা পুরো দেশে কার্যকর হয়েছে।

রয়টার্সের এক খবরে বলা হয়েছে, কাবুলের একটি পার্কের প্রবেশপথে একজন নারীকে দেখা গেছে, যাকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি এবং তিনি হতাশ হয়ে ফিরে গেছেন। নিরাপত্তার স্বার্থে মাসুমা নামে একজন নারী যিনি তার পুরো নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক, তিনি রয়টার্সকে বলেন, ‘যখন একজন মা তার বাচ্চাদের সঙ্গে নিয়ে আসেন তখন অবশ্যই তাদের পার্কে প্রবেশ করতে দেওয়া উচিত। এই বাচ্চাগুলো ভালো কিছু দেখেনি, তাদের অবশ্যই খেলতে দিতে হবে এবং তাদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা করতে হবে’।

তালেবান এবার সরকার গঠনের পর আবারও রোষানলে পড়েন আফগান নারীরা। তাদের অধিকার চাইতে গিয়ে আন্দোলন-বিক্ষোভেও নামেন তারা। কিন্তু তাতেও কাজ হয়নি।

এর আগেও ঘরের বাইরে বের হলে শরীর ঢেকে বের হওয়া, ঘুরতে গেলে পুরুষ অভিভাবক সঙ্গে নেওয়া, এমনকি দেশটির মাধ্যমিকের নারী শিক্ষার্থীরা এখনও স্কুলে ফিরতে পারেনি। যদিও তালেবান সরকার বারবার নারী শিক্ষা বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছে।

এর আগে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তান তালেবানের শাসনে ছিল। সে সময়ও নারীদের ওপর কঠোর বিধিনিষেধ চালু করে দেশটির সরকার। মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, এবার তালেবান সরকার নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দিলেও এখন পর্যন্ত তার কোনও লক্ষণ নেই।

সূত্র: বিবিসি

Subscribe

সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

সংবাদ
সম্পর্কিত

আন্তর্জাতিক ডলফিন দিবস আজ

আজ (২৪ অক্টোবর) আন্তর্জাতিক ডলফিন দিবস। প্রতিবছরের মতো এবারও...

করোনা: ভারতে দৈনিক সংক্রমণ ছাড়াল ৩ লাখ, মৃত্যু প্রায় ৫০০

ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। ইউরোপ, আমেরিকার...

ওমিক্রন ছড়িয়েছে ৩৮ টি দেশে, নেই মৃত্যুর খবর

মহামারি করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন ইতিমধ্যে বিশ্বের ৩৮টি দেশে...

ভারতে বিদ্রোহী ভেবে গ্রামবাসীদের ওপর নিরাপত্তা বাহিনীর গুলি নিহত ১৩

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য নাগাল্যান্ডে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে কমপক্ষে...
লেখা কপি করার অনুমতি নেই, লিংক শেয়ার করুন।