10.1 C
Oslo
মঙ্গলবার, মে ১৮, ২০২১
প্রথম পাতাআন্তর্জাতিকসংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজকুমারি বেঁচে আছেন কিনা তার প্রমাণ চেয়েছে জাতিসংঘ

সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজকুমারি বেঁচে আছেন কিনা তার প্রমাণ চেয়েছে জাতিসংঘ

জাতিসংঘের একটি প্যানেল দুবাইকে আমিরাতের রাজকুমারী লতিফা বেঁচে আছেন কিনা তার প্রমাণ দিতে বলেছে তাঁর একটি ভিডিও প্রকাশের পর যেখানে তিনি বন্দি রয়েছেন বলে জানিয়েছিলেন।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিশেষজ্ঞরা রাজকুমারী লতিফা বেঁচে আছেন কিনা সে ব্যাপারে দুবাইয়ের শাসক কোন কিছু না জানানোতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

জাতিসংঘের একজন বিশ্লেষক তাঁর বিবৃতিতে বলেন, “তাঁর বেঁচে থাকা এবং ভাল থাকার ব্যাপারে সুস্পষ্ট প্রমাণ খুব জরুরী প্রয়োজন।” এটি তিনি বলেন, লতিফার একটি ভিডিও প্রকাশের দুই মাস পরে যেখানে তিনি বলেছেন তিনি গৃহবন্দি এবং তিনি তাঁর জীবন নিয়ে শংকিত।

শেইখা লতিফার মুক্তির জন্য আন্দোলনকারী ব্রিটিশ আইনজীবী ডেভিড হাই বলেন, “তাঁর মুক্তির জন্য জাতিসংঘকে সহায়তা করা বিশ্ব নেতাদের দায়িত্ব।”

৩৫ বছর বয়সী রাজকুমারী দুবাইয়ে তাঁর নিয়ন্ত্রিত জীবন থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য দুইবার পালানোর চেষ্টা করেছিলেন – ২০০২ এবং ২০১৮ সালে। দ্বিতীয়বার উনি একটি ইয়টে চড়ে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু ভারতীয় কমান্ডোরা তাঁকে ভারতের সমুদ্র উপকূলের কাছে ধরে ফেলেন এবং আমিরাতি নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করে।

“প্রতিদিন আমার জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে আমি উদ্বিগ্ন থাকি,” বলেন শেইখা লতিফা তাঁর সাম্প্রতিক ভিডিওতে যা তাঁর বন্ধুদের ভাষ্য অনুযায়ী মোবাইলে ফোনে রেকর্ড করে কারো মাধ্যমে গোপনে বাইরে পাঠানো হয়। “আমি জানি না আমি এই অবস্থায় বেঁচে থাকতে পারব কিনা।”

দুবাইয়ের পূর্বের নিশ্চয়তা যে তাঁর পরিবার এবং স্বাস্থ্য কর্মীরা তাঁকে দেখভাল করছে এটি এ পর্যায়ে আর যথেষ্ট নয়,” বলেন জাতিসংঘের সংশ্লিষ্ট প্যানেল।

নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে যে জেনেভা এবং লন্ডনে অবস্থিত সংযুক্ত আরব আমিরাতের দূতাবাসগুলোতে এ ব্যাপারে তাদের মন্তব্যের জন্য যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য যে, দুবাইয়ের শাসক, শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাখতুমের একজন স্ত্রী, রাজকুমারী হায়া, ব্রিটিশ আদালতে তালাকের আবেদন করেছেন।

একজন বিচারক এটা জানতে পেরেছেন যে শেখ মোহাম্মদ শেইখ লতিফার এক বোন শামসাকেও অপহরণ করেছিল ২০০০ সালে কেম্ব্রিজ শহরে তাঁর বাবার বাড়ি থেকে বের হয়ে যাবার পর। তাঁকে একটি হেলিকপ্টারে করে ফ্রান্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে পরে তাঁকে দুবাইয়ে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

শেখ মোহাম্মদ পৃথিবীর একজন সেরা ধনাঢ্য ব্যাক্তি যার ব্রিটেন এবং আমেরিকায় প্রচুর সম্পত্তি ও বিনিয়োগ রয়েছে। তিনি ঘোড় দৌড়ের ব্যাপারে খুব আগ্রহী যার গোডোলফিন নামে একটি রেসিং সংস্থায় বিনিয়োগ রয়েছে।

ম মাসুদ হোসেন খান
ম মাসুদ হোসেন খান
উপসম্পাদক, সাময়িকী ও উন্নয়ন পরামর্শক
সম্পর্কিত নিবন্ধসমূহ

সংবাদদাতা আবশ্যক

নরওয়ে থেকে প্রকাশিত একমাত্র বাংলা পত্রিকা ‘সাময়িকী ডট কম’ পত্রিকার জন্য বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে সংবাদদাতা আবশ্যক।
আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন।
আমাদের ইমেইল ঠিকানা [email protected]

- বিজ্ঞাপন -

সর্বাধিক পঠিত

সদ্য প্রকাশিত

লেখা কপি করার অনুমতি নেই, লিংক শেয়ার করুন।