2.8 C
Drøbak
বুধবার, জানুয়ারী ১৯, ২০২২
প্রথম পাতাবিচিত্রাভারতে কত মূল্যের নোট ছাপাতে খরচ পড়ে কত?

ভারতে কত মূল্যের নোট ছাপাতে খরচ পড়ে কত?

এই মুহূর্তে ভারতে চালু রয়েছে সাত রকমের নোট। ১০ টাকা থেকে ২০০০ মূল্যের এই কাগজের নোটগুলোর মাপ এবং রং যেমন আলাদা, ঠিক তেমনি ছাপার খরচও কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন। এই নোটগুলো এক-একটি ছাপতে কেন্দ্রীয় সরকারের কত খরচ পড়ে জানেন কী? না জানলে জেনে নিন-

১০ টাকার নোট
১০ টাকার একটি নোট তৈরি করতে কেন্দ্রের খরচ হয় ১ টাকা ১ পয়সা। অর্থাৎ কেন্দ্র যদি ১০ টাকার ১০০টি নোট ছাপিয়ে ১০০০ টাকার মূল্য বাজারে ছাড়ে। তাতে সরকারের খরচ হয় ১০১ টাকা। আগে ১০ টাকার এক-একটি নোট ছাপতে খরচ হত ৯৪ পয়সা।

২০ টাকার নোট
এখন ভারতে চালু রয়েছে দু’রকমের ২০ টাকার নোট। একটি ২০ টাকার নোট ছাপাতে খরচ হয় ১ টাকা। শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি যে, ১০ টাকার তুলনায় ২০ টাকার নোট ছাপার খরচ কিন্তু কম। গত আর্থিক বছরে, মানে ২০১৯-২০ সালে এই নোট ছাপার খরচ ছিল ৯০ পয়সা।

৫০ টাকার নোট
২০ টাকার মতো ৫০ টাকার নোটও এ দেশে চালু রয়েছে দু’রকমের। নতুন ৫০ টাকার একটি নোট ছাপাতে খরচ পড়ে ১ টাকা ২২ পয়সা। গত আর্থিক বছরে, মানে ২০১৯-২০ সালেও ৫০ টাকার একটি নোট ছাপার জন্য খরচ হতো এই ১ টাকা ২২ পয়সাই। তার আগের আর্থিক বছরে, মানে ২০১৮-১৯ সালে এই নোট ছাপার জন্য খরচ পড়ত ২ পয়সা বেশি। অর্থাৎ ১ টাকা ২৪ পয়সা।

১০০ টাকার নোট
১০০ টাকার এক-একটি নোট ছাপার জন্য খরচ হয় ১ টাকা ৫১ পয়সা। আগে এই নোট ছাপার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে বহন করতে হতো এখনকার তুলনায় ৪৮ পয়সা বেশি। মানে ১ টাকা ৯৯ পয়সা।

২০০ টাকার নোট
ভারতের বাজারে আগে ২০০ টাকা মূল্যের কোনও নোট চালু ছিল না। সম্প্রতি নতুন যে নোটগুলো বাজারে এসেছে, তাঁর মধ্যে এই ২০০ টাকার নোট অন্যতম। এটি দেখতে হলদে রঙের। এটি ছাপানোর খরচও অন্য নোটের তুলনায় বেশি। এই নোট এক-একটি ছাপার জন্য খরচ হয় ২ টাকা ৪৮ পয়সা।

৫০০ টাকার নোট
নোটবন্দির সময় আগের ৫০০ টাকার নোট বাতিল করে এ দেশে নতুন যে ৫০০ টাকার নোট চালু হয়েছে, সেই নোট এক-একটি ছাপাতে কেন্দ্রীয় সরকারের কোষাগার থেকে খরচ হয় ২ টাকা ৬৫ পয়সা।

তবে ২০০০ টাকার নোট ছাপার জন্য ঠিক কত টাকা খরচ পড়ে তা কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার এখনও প্রকাশ করেনি।

সিদ্ধার্থ সিংহ
সিদ্ধার্থ সিংহ
২০২০ সালে 'সাহিত্য সম্রাট' উপাধিতে সম্মানিত এবং ২০১২ সালে 'বঙ্গ শিরোমণি' সম্মানে ভূষিত সিদ্ধার্থ সিংহের জন্ম কলকাতায়। আনন্দবাজার পত্রিকার পশ্চিমবঙ্গ শিশু সাহিত্য সংসদ পুরস্কার, স্বর্ণকলম পুরস্কার, সময়ের শব্দ আন্তরিক কলম, শান্তিরত্ন পুরস্কার, কবি সুধীন্দ্রনাথ দত্ত পুরস্কার, কাঞ্চন সাহিত্য পুরস্কার, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা লোক সাহিত্য পুরস্কার, প্রসাদ পুরস্কার, সামসুল হক পুরস্কার, সুচিত্রা ভট্টাচার্য স্মৃতি সাহিত্য পুরস্কার, অণু সাহিত্য পুরস্কার, কাস্তেকবি দিনেশ দাস স্মৃতি পুরস্কার, শিলালিপি সাহিত্য পুরস্কার, চেখ সাহিত্য পুরস্কার, মায়া সেন স্মৃতি সাহিত্য পুরস্কার ছাড়াও ছোট-বড় অজস্র পুরস্কার ও সম্মাননা। পেয়েছেন ১৪০৬ সালের 'শ্রেষ্ঠ কবি' এবং ১৪১৮ সালের 'শ্রেষ্ঠ গল্পকার'-এর শিরোপা সহ অসংখ্য পুরস্কার। এছাড়াও আনন্দ পাবলিশার্স থেকে প্রকাশিত তাঁর 'পঞ্চাশটি গল্প' গ্রন্থটির জন্য তাঁর নাম সম্প্রতি 'সৃজনী ভারত সাহিত্য পুরস্কার' প্রাপক হিসেবে ঘোষিত হয়েছে।
অন্যান্য নিবন্ধসমূহ

সংবাদদাতা এবং লেখা আবশ্যক

নরওয়ে থেকে প্রকাশিত একমাত্র বাংলা পত্রিকা ‘সাময়িকী’ পত্রিকার জন্য বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে সংবাদদাতা আবশ্যক।
ভায়োলেট হালদার
প্রধান সম্পাদক
[email protected]

গল্প-কবিতা সহ বিবিধ সাহিত্য রচনা প্রসঙ্গে ইমেইল করুন।
লিটন রাকিব
সাহিত্য সম্পাদক
[email protected]

- বিজ্ঞাপন -

সর্বাধিক পঠিত

সদ্য প্রকাশিত

লেখা কপি করার অনুমতি নেই, লিংক শেয়ার করুন।