যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের বহিষ্কার করলো রাশিয়ার

সাময়িকী ডেস্ক
সাময়িকী ডেস্ক
2 মিনিটে পড়ুন
রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেছেন বেলারুশে কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েন করবেন তিনি। ছবি সংগৃহীত

শুরু হয়ে গেল কূটনৈতিক যুদ্ধ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সম্প্রতি নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের অফিস থেকে ১২ জন রাশিয়ার প্রতিনিধিকে বহিষ্কার করেছে।

বুধবার (২৩ মার্চ) রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, তারা মার্কিন দূতাবাসকে একটা তালিকা ধরিয়ে দিয়েছে। তাতে কাদের পার্সোনা নন গ্রাটা বলে ঘোষণা করা হয়েছে, সেকথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর অর্থ, তালিকায় থাকা কূটনীতিকদের অবিলম্বে রাশিয়া ছাড়তে হবে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে দৃঢ়ভাবে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে, তারা কোনো ব্যবস্থা নিলে, তার পাল্টা ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।

পোল্যান্ড রাশিয়ার ৪৫ জন কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে। তাদের দাবি, রাশিয়ার ওই কূটনীতিকরা ইইউ দেশগুলিতে চরবৃত্তি করছিল।

- বিজ্ঞাপন -

পোল্যান্ডের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাশিয়ার স্পেশাল সার্ভিস নেটওয়ার্ক পুরোপুরি ভেঙে দেওয়া হচ্ছে। একজনকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে পোল্যান্ড ছেড়ে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে। বাকিরা পোল্যান্ড ছাড়ার জন্য পাঁচদিন সময় পাবেন।

মস্কো ইউক্রেনে হামলা করার পর থেকে পোল্যান্ড ও রাশিয়ার মধ্যে সম্পর্ক খুবই খারাপ। পোল্যান্ড জানিয়েছে, রাশিয়া তাদের প্রতিবেশী দেশ। ফলে তাদের ইউরোপের ম্যাপ থেকে মুছে ফেলা যাবে না। তবে তারা পোল্যান্ডের বন্ধু দেশ নয়। তারা পোল্যান্ড-বিরোধী কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

যে ৪৫ জনকে বহিষ্কার করা হয়েছে, তাদের অর্ধেকের বেশি দূতাবাসে কাজ করতেন।

রাশিয়া জানিয়েছে, পোল্যান্ডের অভিযোগ ভিত্তিহীন। তবে রাশিয়া বলেছে, পোল্যান্ডের সঙ্গে তাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক বজায় আছে। দূতাবাস আছে, রাষ্ট্রদূতও আছেন।

পোল্যান্ডে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেছেন, রাশিয়াও এর পাল্টা ব্যবস্থা নিতে পারে। তবে তিনি বিস্তারিত কিছু বলেননি।

- বিজ্ঞাপন -

এর আগে বুলগেরিয়াও রাশিয়ার কূটনীতিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছিল।

গুগল নিউজে সাময়িকীকে অনুসরণ করুন 👉 গুগল নিউজ গুগল নিউজ

এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
একটি মন্তব্য করুন

প্রবেশ করুন

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?

আপনার অ্যাকাউন্টের ইমেইল বা ইউজারনেম লিখুন, আমরা আপনাকে পাসওয়ার্ড পুনরায় সেট করার জন্য একটি লিঙ্ক পাঠাব।

আপনার পাসওয়ার্ড পুনরায় সেট করার লিঙ্কটি অবৈধ বা মেয়াদোত্তীর্ণ বলে মনে হচ্ছে।

প্রবেশ করুন

Privacy Policy

Add to Collection

No Collections

Here you'll find all collections you've created before.

লেখা কপি করার অনুমতি নাই, লিংক শেয়ার করুন ইচ্ছে মতো!