9.3 C
Drøbak
সোমবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১
প্রথম পাতাবিচিত্রাশ্রেষ্ঠ সুরের স্রষ্টা একজন বধির

শ্রেষ্ঠ সুরের স্রষ্টা একজন বধির

সদ্য কম্পোজ করা মিউজিক শোনাবেন স্যার বিঠোফেন— এই সংবাদ প্রকাশের মাত্র কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিক্রি হয়ে গেল সমস্ত টিকিট। জমজমাট মঞ্চে তিনি ছড়িয়ে দিলেন এক অদ্ভুত সুর-তরঙ্গ।

নাইনথ সিম্ফোনি। মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে গেলেন সবাই। শেষ হয়ে যাবার পরেও যেন‌ রেশ কাটতে চায় না। তাঁরা যেন তখনও ভেসে আছেন এক অনাবিল আনন্দের জোয়ারে। যখন চেতনা ফিরল, সমস্ত বাধা অতিক্রম করে বেশ কিছু শ্রোতা উঠে গেলেন মঞ্চে। তাঁকে ঘিরে ধরে উন্মাদের মতো অভিনন্দন জানাতে লাগলেন তাঁরা। মুখে মুখে রটে গেল, ‘নাইনথ সিম্ফোনির সুরের মাধুর্যে উন্মুক্ত হয়েছে স্বর্গের দরজা।’

বিঠোফেন 2 শ্রেষ্ঠ সুরের স্রষ্টা একজন বধির
শ্রেষ্ঠ সুরের স্রষ্টা একজন বধির 2

অথচ যাঁকে নিয়ে এত কাণ্ড, এত উন্মাদনা, এত হইচই, সেই মিউজিক কম্পোজিটার কিন্তু নির্বিকার। নিশ্চুপ। তাঁর কোনও হেলদোল নেই। আসলে অসামান্য যন্ত্রসংগীত সৃষ্টি করলেও তিনি নিজে কিন্তু শুনতে পাননি এর একটা ঝংকারও। কারণ, যুবক বয়সেই এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় তিনি বধির হয়ে যান। তার পর থেকে তাঁর হাতে বাদ্যযন্ত্র তুলে দিলেই, তিনি শুধু বাজান। বাজিয়েই যান। নিজে শুনতে পান না কিচ্ছু।

এই কথা শুনে অনেকেই সে দিন আর চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি। যিনি এই সুর লহরীর স্রষ্টা, তিনি নিজেই জানতে পারলেন না, তিনি কী সৃষ্টি করে ফেলেছেন! এই শিল্পীর কম্পোজ করা অন্যান্য মিউজিক বাদ দিলেও, শুধুমাত্র ‘নাইনথ সিম্ফোনি’র জন্যই তিনি আজও পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম মিউজিক কম্পোজিটার। বিশ্বে এ রকম আর কোনও শ্রবণশক্তিহীন মানুষের সন্ধান পাওয়া যায়নি, যিনি এমন অসাধ্য সাধন করেছেন। অন্তত যন্ত্রসংগীতে।

সিদ্ধার্থ সিংহ
সিদ্ধার্থ সিংহ
২০২০ সালে 'সাহিত্য সম্রাট' উপাধিতে সম্মানিত এবং ২০১২ সালে 'বঙ্গ শিরোমণি' সম্মানে ভূষিত সিদ্ধার্থ সিংহের জন্ম কলকাতায়। আনন্দবাজার পত্রিকার পশ্চিমবঙ্গ শিশু সাহিত্য সংসদ পুরস্কার, স্বর্ণকলম পুরস্কার, সময়ের শব্দ আন্তরিক কলম, শান্তিরত্ন পুরস্কার, কবি সুধীন্দ্রনাথ দত্ত পুরস্কার, কাঞ্চন সাহিত্য পুরস্কার, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা লোক সাহিত্য পুরস্কার, প্রসাদ পুরস্কার, সামসুল হক পুরস্কার, সুচিত্রা ভট্টাচার্য স্মৃতি সাহিত্য পুরস্কার, অণু সাহিত্য পুরস্কার, কাস্তেকবি দিনেশ দাস স্মৃতি পুরস্কার, শিলালিপি সাহিত্য পুরস্কার, চেখ সাহিত্য পুরস্কার, মায়া সেন স্মৃতি সাহিত্য পুরস্কার ছাড়াও ছোট-বড় অজস্র পুরস্কার ও সম্মাননা। পেয়েছেন ১৪০৬ সালের 'শ্রেষ্ঠ কবি' এবং ১৪১৮ সালের 'শ্রেষ্ঠ গল্পকার'-এর শিরোপা সহ অসংখ্য পুরস্কার। এছাড়াও আনন্দ পাবলিশার্স থেকে প্রকাশিত তাঁর 'পঞ্চাশটি গল্প' গ্রন্থটির জন্য তাঁর নাম সম্প্রতি 'সৃজনী ভারত সাহিত্য পুরস্কার' প্রাপক হিসেবে ঘোষিত হয়েছে।
অন্যান্য নিবন্ধসমূহ

সংবাদদাতা এবং লেখা আবশ্যক

নরওয়ে থেকে প্রকাশিত একমাত্র বাংলা পত্রিকা ‘সাময়িকী’ পত্রিকার জন্য বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে সংবাদদাতা আবশ্যক।
ভায়োলেট হালদার
প্রধান সম্পাদক
[email protected]

গল্প-কবিতা সহ বিবিধ সাহিত্য রচনা প্রসঙ্গে ইমেইল করুন।
লিটন রাকিব
সাহিত্য সম্পাদক
[email protected]

- বিজ্ঞাপন -

সর্বাধিক পঠিত

সদ্য প্রকাশিত

লেখা কপি করার অনুমতি নেই, লিংক শেয়ার করুন।