দাপটে উল্লাসে, আমি নিজেকে বদলে ফেলতে পারি এবং অন্যান্য কবিতা

জয়িতা চট্টোপাধ্যায়
জয়িতা চট্টোপাধ্যায়
3 মিনিটে পড়ুন

দাপটে উল্লাসে

আজ পৃথিবী বান্ধবহীন যেন রেল ব্রিজে দাঁড়িয়ে একা
বিনিদ্র রাতের শয্যায় জানলার বাইরে তাকিয়ে তাকিয়ে তারা গোনা
ধূসর সন্ধ্যায় নেমে আসে ছায়া যদি সেই মুহূর্ত তোমাকে পেতাম
গাঢ় আলিঙ্গনে
নদীও তখন স্থির কায়া
তোমার চুম্বনে আমার হৃদয়ে তখন বাউলের সুর
বিজনে পেতাম নিজের সঙ্গে দেখা দূর সমুদ্দুর
কবি তার কবিতার মানুষটিকে পেয়েছে বলে ঝঙ্কারে বেজে উঠত দোতারা
ক্ষ্মীণ হয়ে আসত আলো
প্রশ্ন করতাম কে বেসেছে আগে ভালো
কবিতা লেখার সময় কাঙ্ক্ষিত পঙক্তিমালা
পথ হারাতো নীল কুয়াশায়
বিস্তৃতি নিমেষে মুছে যেত
বেঁচে যেত স্বপ্ন ভাঙা শোক
ভেসে বেড়াতাম আমাদের গঙ্গায়।

DCEA00E9 9AE7 4B92 90ED AF031173C36C দাপটে উল্লাসে, আমি নিজেকে বদলে ফেলতে পারি এবং অন্যান্য কবিতা
দাপটে উল্লাসে, আমি নিজেকে বদলে ফেলতে পারি এবং অন্যান্য কবিতা 41

আমি নিজেকে বদলে ফেলতে পারি

যদি তুমি নির্বাসন দাও তোমার জন্য টুকরো হয়ে যাব
তুমি যদি নির্বাসন দাও আমার সত্তাকে নিংড়ে নিয়ে তোমার পায়ে রেখে যাব
হাঁটব না আর কোনো মোহন রাস্তা ধরে
মরে যেতে পারি অবলীলায় বিষ পান করে
বিষণ্ণ আলোতে অন্তরালে নিজেকে বদলে ফেলতে পারি
নদীর শিয়রে ঝুঁকে পরা মেঘ না দেখে নিজেকে নিষিদ্ধ কারাগারে বন্দী করে রাখি
চাপ রক্ত ঝরেছে যেখানে নদীর বুকে
সেখানেই বহির্জীবন কাটাতে পারি ফেরারি সুখে
শহরে বন্দরে আজ এত অগ্নিবৃষ্টি তারও পড়ে
তোমার স্বপ্ন দেখে কাটিয়ে দিতে পারি বাকি জীবন জ্বরের ঘোরে।।

অসীম শূন্যতা

তুমি যেখানেই হাত রাখো সবকিছু ফেলে সেখানেই আমার শরীর
তোমার চুল ধোয়া জল যেখানেই পড়ে সেখানেই আমি পাতি হাত
সূর্যও রক্তে যেমন ডুবে যায় অগাধ গভীর
আমি তো ফিরিনি ঘরে থেকে যাই তোমার সাথে
তোমার চতুর্দিকে শূন্যতাকে ভর করে
রেল ব্রিজে একাকার হাঁসি হাহাকার নেশা
যেখানেই তুমি ছুঁয়ে যাও হাত
সেখানেই আমার শরীরে মাদকের নেশা
কে বলে তোমাকে আমি পরিত্রাণ ভালোবাসি
তুমি যেখানেই রাখো ঠোঁট
সেখানেই আমার চুম্বন পায়
প্রবল অযত্নে তোমার
ঠোঁটের থেকে ঝরে যাই আমি
ভালোবেসে নিজেকে কাঁদাই
তোমার চোখের ছায়ায় খেলা করে যাই আমি।।

পুরোনো সুদ

ধ্বংসে দাঁড়িয়ে তুমি চেয়েছিলে জয়
হতে পারে আমাদের দেখা সে তো সামাজিক নয়
তবুও তোমার নাম জমা আছে বুকে যেভাবে টাকার অঙ্ক জমা পরে খাতে
সবার অলক্ষ্যে সুখে কতো পাণ্ডুলিপি উড়ে আসে
চলে আসে ধেয়ে বুকের ওপরে দুটি হাত
অনন্যপায় হয়ে তোমাকে জড়িয়ে ধরেছি আঁকড়ে
জড়িয়ে ধরেছি কান্নার জলপ্রপাত।।

- বিজ্ঞাপন -
87D928B7 17FA 4442 904F B6D83C58DCED দাপটে উল্লাসে, আমি নিজেকে বদলে ফেলতে পারি এবং অন্যান্য কবিতা
দাপটে উল্লাসে, আমি নিজেকে বদলে ফেলতে পারি এবং অন্যান্য কবিতা 42

শ্রাবণ মাস

তোমার প্রতিটা চিঠির উত্তর আমি পাঠিয়েছি
পাঠিয়েছি খামে ভরে শ্রাবণ মাস
মেঘের অক্ষরে লিখেছি অবর্থ্য যন্ত্রনার কথা
তুমি কত খেলেছ শ্রাবণের জলে
তখন তুমুল কথাগুলো উঠে আসে চোখে
তোমার মুখোমুখি আমি নেই
শুধু হাতের সামনে আমার ছেঁড়া কাগজ
কত বিভীষিকা পেরিয়ে উড়ো চিঠি মেঘে পাঠিয়েছি সেদিন, জানি না আজ কেন তোমার দুচোখ খটখটে বৃষ্টিহীন।।

B3278795 12F7 43C9 B45C A63BABA8B231 দাপটে উল্লাসে, আমি নিজেকে বদলে ফেলতে পারি এবং অন্যান্য কবিতা
দাপটে উল্লাসে, আমি নিজেকে বদলে ফেলতে পারি এবং অন্যান্য কবিতা 43

বিপ্লবী বসন্ত

যেখানে তোমার পায়ের চিহ্ন ছেড়ে গেছো
অতীত আজ সেই শহর বন্দর
আমার ঘরে পলেস্তারা খসা দেওয়াল
চিহ্ন রেখে গেছে দরজায় কুটিল মহাকাল
আজ আর এ বুকের বন্দরে এসে থামে না জাহাজ
পলি জমে মরে গেছে শত সহস্র নদী
স্বপ্নের রূপকথায় সপ্তডিঙ্গার সাজ
তোমার পায়ের নীচ থেকে ধূসর ভোরবেলার শহর জেগে ওঠে, আমি তখন রক্ত মেখে লাল
শ্লোগানে, বিক্ষোভে, শিরায় বিপ্লবী বসন্ত ছোটে।।

গুগল নিউজে সাময়িকীকে অনুসরণ করুন 👉 গুগল নিউজ গুগল নিউজ

এই নিবন্ধটি শেয়ার করুন
কবি। পশ্চিমবঙ্গ, ভারত।
একটি মন্তব্য করুন

প্রবেশ করুন

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?

পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?

আপনার অ্যাকাউন্টের ইমেইল বা ইউজারনেম লিখুন, আমরা আপনাকে পাসওয়ার্ড পুনরায় সেট করার জন্য একটি লিঙ্ক পাঠাব।

আপনার পাসওয়ার্ড পুনরায় সেট করার লিঙ্কটি অবৈধ বা মেয়াদোত্তীর্ণ বলে মনে হচ্ছে।

প্রবেশ করুন

Privacy Policy

Add to Collection

No Collections

Here you'll find all collections you've created before.

লেখা কপি করার অনুমতি নাই, লিংক শেয়ার করুন ইচ্ছে মতো!