23.8 C
Drøbak
রবিবার, জুলাই ২৫, ২০২১
প্রথম পাতামুক্ত সাহিত্যএভাবেও ভাল থাকা যায় (১৩তম পর্ব)

এভাবেও ভাল থাকা যায় (১৩তম পর্ব)

আনন্দের মধ্যেও একটা ভয় ভয় ভাব

শুনতে অদ্ভুত লাগলেও এটাই সত্যি যে পৃথিবীতে এমন কিছু মানুষ আছেন যাদের মধ্যে আনন্দ থাকলেও, সেই আনন্দের মধ্যে কেমন একটা ভীতি কাজ করে। এ ফোবিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তি উপভোগ্য মূহূর্তগুলোকে ভয় পান। তারা আনন্দ পেতে যেমন ভয় পান, তেমনি প্রকাশ করতেও ভয় পান। এ ধরণের মানুষরা সমাজের সবার থেকে আলাদা থাকতে পছন্দ করেন। তাই তাঁদের স্বাভাবিক সামাজিক জীবন-যাত্রা ব্যাহত হয়। জীবনকে সুস্থ, সুন্দর এবং স্বাভাবিক রাখতে হলে নিজের মধ্যে তৈরি হওয়া ভুল অভ্যাস এবং তৈরি হওয়া ভয়-ভীতিকে খুব তাড়াতাড়ি সরিয়ে ফেলতে হবে। একার দ্বারা সম্ভব না হলে অবশ্যই কোনো মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে গিয়ে পরামর্শ নেওয়া উচিত। কিছুতেই বাড়তে দেওয়া উচিত নয়। যদি নিজের চেষ্টায় করতে চান তাহলে আপনি এভাবে নিজেই চেষ্টা করে দেখুন। যেমন –

প্রথমত, আতঙ্ক বা ভয় দূর করার কিছু উপায় সম্পর্কে প্রথমেই আপনি নিজের কাছে নিজেই একটা প্রস্তুতি নিয়ে ফেলুন। সবার প্রথমে আপনি আপনার অনুভূতি গুছিয়ে রাখুন।
দ্বিতীয়ত, মনে মনে ভাবুন আপনার কোনো বড় সমস্যা বা অসুবিধা নেই৷
তৃতীয়ত, যে কোনো পরিস্থিতির জন্য আপনি নিজেকে তৈরি রাখুন৷ তাহলে অকারণে যেটুকু ভয় আপনার হচ্ছে সেটা আস্তে আস্তে চলে যাবে৷
চতুর্থত, মানসিক প্রস্তুতিই হচ্ছে জীবনের সবচেয়ে বড় প্রস্তুতি৷
পঞ্চমত, জীবনে কিছু মানুষ অনেক প্রতিভা নিয়ে জন্মায়। শান্ত মাথায় নিজের কাছে নিজেই প্রশ্ন করুন বা প্রথমে একটা সিদ্ধান্তে আসুন আপনি ঠিক কি করতে চান।
ষষ্ঠত, আপনি কি খুব বেশী অস্থিরতায় ভোগেন? তাহলে আগে মনটাকে দিঘির মতো শান্ত করতে চেষ্টা করুন। তার জন্যে ধ্যান করুন অর্থাৎ মেডিটেশন।
সপ্তমত, শারীরিক অনুশীলনের পাশাপাশি প্রাণায়ম করুন কিছুদিন। ঘাম ঝরিয়ে শরীর চর্চা করুন।
অষ্টমত, এই জিনিসগুলো কিন্তু ছেলেখেলা নয় মনকে ঠিক রাখতে, শরীরকে ঠিক রাখতে ভীষণরকম সহায়তা করে।
নবমত, কে কি ভাবল এটা ভুলে যান। তাই বলে নিজে যত বড়ই হোন না কেন বাইরের মানুষের কাছে বেশি বড় বড় ভাব দেখাবেন না একদম ।
দশমত, কোনো মানুষের পক্ষেই সবকিছু পাওয়া সম্ভব নয়। কারো জীবনে কিছু কম বা বেশি কিছু আছে তাই নিয়েই জীবন। কারো কিছু কম আছে বা নেই, যা অন্যের জীবনে আছে। তাই বলে আমার জীবন শেষ হয়ে গেল এমনটা কিন্তু মোটেই নয়।
একাদশ, জীবনে বাঁচুন নিজের মতো করে, নিজস্ব ছন্দে। প্রতিযোগিতায় নাই বা গেলেন। আপনার চেয়ে খুব সাধারণ রেজাল্ট থাকা সত্বেও কেন সে অনেক উপরে উঠে গেল, এমনটা ভাববেন না একেবারেই।

এভাবে নিজের মনকে শান্ত করুন সবার আগে। ধীরে ধীরে নিজেকে পালটে ফেলুন। আপনার জীবন আপনার, অকারণে কেন ভয় পেয়ে জীবনটাকে নষ্ট করে ফেলবেন। জীবনকে ভালোবাসুন, নিজের যত্ন নিন। আপনার সামান্য কোনো অবহেলা যেন জীবনের গতিকে থামিয়ে দিতে না পারে।

(চলবে)

মণিজিঞ্জির সান্যাল
মণিজিঞ্জির সান্যাল
কবি, লেখক ও নৃত্যশিল্পী। শিলিগুড়ি, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত।
অন্যান্য নিবন্ধসমূহ

সংবাদদাতা এবং লেখা আবশ্যক

নরওয়ে থেকে প্রকাশিত একমাত্র বাংলা পত্রিকা ‘সাময়িকী’ পত্রিকার জন্য বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে সংবাদদাতা আবশ্যক।
ভায়োলেট হালদার
প্রধান সম্পাদক
[email protected]

গল্প-কবিতা সহ বিবিধ সাহিত্য রচনা প্রসঙ্গে ইমেইল করুন।
লিটন রাকিব
সাহিত্য সম্পাদক
[email protected]yiki.com

- বিজ্ঞাপন -

সর্বাধিক পঠিত

সদ্য প্রকাশিত

লেখা কপি করার অনুমতি নেই, লিংক শেয়ার করুন।