1.1 C
Drøbak
সোমবার, অক্টোবর ১৮, ২০২১
প্রথম পাতাসাম্প্রতিক১২২ বছর ধরে জেল খাটছে গাছটি

১২২ বছর ধরে জেল খাটছে গাছটি

একটি গাছকে ১৮৯৮ সালে তৎকালীন অবিভক্ত ভারতের ব্রিটিশ সেনা কর্মকর্তা জেমস স্কুইড যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছিলেন। আজও পাকিস্তানের ল্যান্ডি কোটাল সেনানিবাসে শিকল দিয়ে বন্দি করে রাখা হয়েছে সেই মহীরুহটিকে।

জেমস মদ্যপ অবস্থায় একদিন বাড়ি ফিরছিলেন। পথের মধ্যে হঠাৎ তিনি দাঁড়িয়ে যান। দেখেন, ওই গাছটি তাঁর দিকে গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে আসছে।

তিনি বারবার গাছটিকে এগিয়ে আসতে নিষেধ করেন। তবু তাঁর নির্দেশ অমান্য করে সেটি এগিয়ে আসতে থাকে তাঁর দিকে। তিনি এক পা দু’পা করে পিছিয়ে এলেও গাছটি কিন্তু থামেনি। যথারীতি এগিয়ে আসতেই থাকে।

তিনি তখন চিৎকার করে ওঠেন— অ্যারেস্ট হিম। তাঁর চিৎকারে সঙ্গে সঙ্গে ব্যারাক থেকে ছুটে আসেন সেনারা। তাঁরা শিকল দিয়ে বেঁধে ফেলেন ওই গাছটিকে।

Screenshot 20210620 195535 2 ১২২ বছর ধরে জেল খাটছে গাছটি
১২২ বছর ধরে জেল খাটছে গাছটি 2

কিন্তু গাছটিকে তিনি অ্যারেস্ট করতে বললেন কেন? এই প্রশ্ন করায় তিনি তাঁদের বলেছিলেন, তাঁর দিকে ওই গাছটির এগিয়ে আসার কথা।

না, তাঁর সেই গল্প কেউ বিশ্বাস করেননি। সবাই বুঝতে পেরেছিলেন, আসলে ও রকম কিছুই ঘটেনি। তিনি যা দেখেছেন বলছেন, সেটা আসলে তিনি নেশার ঘোরে ভুলভাল দেখেছেন। কিন্তু সেই কথাটা কেউই তাঁর সামনে মুখ ফুটে বলতে পারেননি।

তাই সে দিন শুধু ওই বটগাছটিকে যাবজ্জীবন বন্দী করে রাখার আদেশ দিয়েই তিনি থেমে থাকেননি, স্থানীয় বাসিন্দাদেরও হুমকি দিয়ে বলেন, কেউ যদি এই গাছটিকে মুক্ত করেন তা হলে তাঁকে এর থেকেও কড়া শাস্তি পেতে হবে। ফলে কেউই আর সাহস করে শিকল দিয়ে আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে রাখা ওই গাছটিকে মুক্ত করার কথা কল্পনাও করেননি।

যিনি আদেশ দিয়েছিলেন তিনি কবেই মরে ভূত হয়ে গেছেন। দেশ ভাগ হয়ে গেছে বহু যুগ আগেই। তবুও এখনও কেউ ওই শেকলটি খোলেননি।

কালের সাক্ষী হয়ে ল্যান্ডি কোটাল সেনানিবাসে আজও বন্দী হয়ে রয়েছে ওই গাছটি। তার গায়ে বড় বড় হরফে লেখা— ‘আই অ্যাম আন্ডার অ্যারেস্ট।

সিদ্ধার্থ সিংহ
সিদ্ধার্থ সিংহ
২০২০ সালে 'সাহিত্য সম্রাট' উপাধিতে সম্মানিত এবং ২০১২ সালে 'বঙ্গ শিরোমণি' সম্মানে ভূষিত সিদ্ধার্থ সিংহের জন্ম কলকাতায়। আনন্দবাজার পত্রিকার পশ্চিমবঙ্গ শিশু সাহিত্য সংসদ পুরস্কার, স্বর্ণকলম পুরস্কার, সময়ের শব্দ আন্তরিক কলম, শান্তিরত্ন পুরস্কার, কবি সুধীন্দ্রনাথ দত্ত পুরস্কার, কাঞ্চন সাহিত্য পুরস্কার, দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা লোক সাহিত্য পুরস্কার, প্রসাদ পুরস্কার, সামসুল হক পুরস্কার, সুচিত্রা ভট্টাচার্য স্মৃতি সাহিত্য পুরস্কার, অণু সাহিত্য পুরস্কার, কাস্তেকবি দিনেশ দাস স্মৃতি পুরস্কার, শিলালিপি সাহিত্য পুরস্কার, চেখ সাহিত্য পুরস্কার, মায়া সেন স্মৃতি সাহিত্য পুরস্কার ছাড়াও ছোট-বড় অজস্র পুরস্কার ও সম্মাননা। পেয়েছেন ১৪০৬ সালের 'শ্রেষ্ঠ কবি' এবং ১৪১৮ সালের 'শ্রেষ্ঠ গল্পকার'-এর শিরোপা সহ অসংখ্য পুরস্কার। এছাড়াও আনন্দ পাবলিশার্স থেকে প্রকাশিত তাঁর 'পঞ্চাশটি গল্প' গ্রন্থটির জন্য তাঁর নাম সম্প্রতি 'সৃজনী ভারত সাহিত্য পুরস্কার' প্রাপক হিসেবে ঘোষিত হয়েছে।
অন্যান্য নিবন্ধসমূহ

সংবাদদাতা এবং লেখা আবশ্যক

নরওয়ে থেকে প্রকাশিত একমাত্র বাংলা পত্রিকা ‘সাময়িকী’ পত্রিকার জন্য বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে সংবাদদাতা আবশ্যক।
ভায়োলেট হালদার
প্রধান সম্পাদক
[email protected]

গল্প-কবিতা সহ বিবিধ সাহিত্য রচনা প্রসঙ্গে ইমেইল করুন।
লিটন রাকিব
সাহিত্য সম্পাদক
[email protected]

- বিজ্ঞাপন -

সর্বাধিক পঠিত

সদ্য প্রকাশিত

লেখা কপি করার অনুমতি নেই, লিংক শেয়ার করুন।