10.2 C
Oslo
রবিবার, মে ১৬, ২০২১
প্রথম পাতাসাম্প্রতিকপরপারে চলে গেলেন ঢালিউডের ‘মিষ্টি মেয়ে’ কবরী

পরপারে চলে গেলেন ঢালিউডের ‘মিষ্টি মেয়ে’ কবরী

ঢাকাই চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরী (৭০) করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৩ দিনের মাথায় ইহলোক ত্যাগ করেছেন। শুক্রবার রাত ১২টা ২০ মিনিটেশেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের আইসিইউতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন।

শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ফারুক আহমেদ কবরীর মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন।

১৯৫০ সালের ১৯ জুলাই চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে জন্মগ্রহণ করেন কবরী। তার আসল নাম ছিল মিনা পাল। বাবা শ্রীকৃষ্ণদাস পাল এবং মা লাবণ্য প্রভা পাল। ১৯৬৩ সালে মাত্র ১৩ বছর বয়সে নৃত্যশিল্পী হিসেবে মঞ্চে উঠেছিলেন তিনি। তারপর টেলিভিশন ও সবশেষে সিনেমায়। কবরী বিয়ে করেন চিত্ত চৌধুরীকে। প্রথম বিবাহ বিচ্ছেদের পর ১৯৭৮ সালে তিনি বিয়ে করেন সফিউদ্দীন সরোয়ারকে। ২০০৮ সালে তাদের দ্বিতীয় বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। তিনি পাঁচ সন্তানের মা।

k2 পরপারে চলে গেলেন ঢালিউডের ‘মিষ্টি মেয়ে’ কবরী
পাঁচ সন্তান সহ কবরী

১৯৬৪ সালে সুভাষ দত্তের ‘সুতরাং’ সিনেমার মধ্য দিয়ে চলচিত্র জগতে পা রাখেন কবরী। ১৯৬৫ সালে অভিনয় করেন ‘জলছবি’ ও ‘বাহানা’য়, ১৯৬৮ সালে ‘সাত ভাই চম্পা’, ‘আবির্ভাব’, ‘বাঁশরি’, ‘যে আগুনে পুড়ি’। ১৯৭০ সালে ‘দীপ নেভে নাই’, ‘দর্পচূর্ণ, ‘ক খ গ ঘ ঙ’, ‘বিনিময়’ মতো জনপ্রিয় সিনেমায়। এছাড়াও তার উল্লেখযোগ্য ছবিগুলোর মধ্যে ‘সারেং বৌ’, ‘নীল আকাশের নিচে’, ‘ময়নামতি’, ‘ঢেউয়ের পর ঢেউ’, ‘পরিচয়’, ‘অধিকার’, ‘বেঈমান’, ‘অবাক পৃথিবী’, ‘সোনালী আকাশ’, ‘দীপ নেভে নাই’-এর মতো দর্শকপ্রিয় সিনেমাতে। ২০০৬ সালে তার পরিচালিত প্রথম সিনেমা ‘আয়না’ মুক্তি পায়।

সম্পর্কিত নিবন্ধসমূহ

সংবাদদাতা আবশ্যক

নরওয়ে থেকে প্রকাশিত একমাত্র বাংলা পত্রিকা ‘সাময়িকী ডট কম’ পত্রিকার জন্য বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে সংবাদদাতা আবশ্যক।
আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন।
আমাদের ইমেইল ঠিকানা [email protected]

- বিজ্ঞাপন -

সর্বাধিক পঠিত

সদ্য প্রকাশিত

লেখা কপি করার অনুমতি নেই, লিংক শেয়ার করুন।