সাময়িকী.কম

সম্প্রতি দুটি কারণে আলোচনায় এসেছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের ব্যস্ত অভিনেত্রী পরীমনি। প্রথম কারণটা হলো তাঁর সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র 'পুড়ে যায় মন।' তিনি বলছেন সিনেমা হলে হাউজফুল যাচ্ছে এই ছবি। দ্বিতীয়ত পরীমনির কিছু পুরনো ছবি ভাইরাল হয়েছে। আর এই ভাইরাল ছবি নিয়ে এখন মিডিয়া পাড়ায় কান পাতলেই গুঞ্জন। পরীমনি এসব নিয়েই খোলামেলা কথা বললেন মাহতাব হোসেন-এর সাথে
সে কি আমার হাজবেন্ড?
ছবিতে আমার সাথে খুব ঘনিষ্ঠভাবে যাকে দেখা যাচ্ছে সে কি আমার হাজবেন্ড? আমার হাজবেন্ড প্রমাণ করার জন্য কি এই ধরনের ছবিই যথার্থ? আসলে আমার আন্তরিকতাকে যদি মানুষ দুর্বল ভেবে সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করে তাহলে তো আমার বলার কিছু নেই। হালের আলোচিত অভিনেত্রী পরীমনি এমনটাই জানালেন।
আর যা যা বললেন পরীমনি
আপনার সাথে কি আমার কোনো ছবি আছে, থাকলে আপনিও ফেসবুকে পোস্ট করে দেন আপনিও জনপ্রিয় হয়ে যাবেন। টেলিফোনে কথা বলার সময় এমনটাই জানালেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের এই শীর্ষ অভিনেত্রী। আপনার সাথে তো আমার দেখাই হয় নি ছবি থাকবে কোথা থেকে? এমন প্রশ্নের জবাবে পরীমনি বলেন আপনার সাথে নেই কিন্তু যারা আমার বিরুদ্ধে এইসব করছে তাদের অনেকের সাথেই আমার 'ছড়ানো' ছবির চেয়েও ঘনিষ্ঠ ছবি আছে। যেগুলো দিয়ে তো তাঁরা যা ইচ্ছে তাই করতে পারে, পারলে তাঁরাও জনপ্রিয় হোক।
উল্লেখ্য, পরীমনির কিশোরী সময়ের বেশকিছু ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়। এক যুবকের সাথে 'ঘনিষ্ঠ' ভাবে সেই ছবিতে পরীমনিকে দেখা যাচ্ছে। ভাইরাল হয়ে যাওয়া ছবিগুলোর বিষয়ে দাবি করা হয়েছে পরীমনির সাথে থাকা যুবকটি পরীমনির 'স্বামী।'
কেন এই ভাইরাল ছবি?
এই যে আমি ৩ বছর ধরে চলচ্চিত্রে কাজ করে যাচ্ছি, এতদিন কোথায় ছিল আমার সেইসব 'স্বামীগুলো?' পরীমনির এমন কথার প্রেক্ষিতে জিজ্ঞেস করি 'স্বামীগুলো' কেন? কেন আমার সাথে তো অনেকজনের ছবি প্রকাশ হয়েছে সবগুলোকেই আমার স্বামী বানানো হচ্ছে। আসলে রঙিন যুগে সাদাকালো ছবি দিয়ে লাভ নেই। মানুষ বুঝতে পারে কোনটি রঙিন, কোনটি সাদাকালো। আমি সবার সাথেই আন্তরিকভাবে মিশি। এটা আমার গুড হ্যাবিট কিংবা ব্যাট হ্যাবিট। আপনার সাথে দেখা হলেও হয়তো এইরকম ছবি থাকতো অকপটে বলে গেলেন পরমনি।
তাহলে এইসব ছবি ছড়ানোর উদ্দেশ্য কি?
পরীমনি বলেন,  দেখেন আমার প্রথম ছবি 'সীমাহীন ভালোবাসা'র লুকের চেয়ে আমার বর্তমান লুকের বেশ পার্থক্য। হ্যাঁ ছবিগুলো আমার। আমি ড্রাইভার, আমার মেকআপ ম্যান সবার সাথেই এভাবেই ছবি তুলতে পারি। এবং এই ছবিগুলো তেমনই। এখন এখানে যদি আমার ড্রাইভার চাকরি থেকে চলে যায়, এবং মানুষকে গিয়ে বলে পরীমনি আমার বৌ তাহলে কি আমি তার বৌ হয়ে গেলাম?
তাহলে কি কি দুর্বলতার সুযোগ?
আসলে দুর্বলতার সুযোগ নয়। ঠিক আমার সাথে একটা গেইম খেলা হচ্ছে। আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমার সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি 'পুড়ে যায় মন' হাউজফুল যাচ্ছে। আমার জনপ্রিয়তাও একটা ফ্যাক্টর। চেষ্টা চালানো আমার জনপ্রিয়তাকে ধস নামানোর। আসলে ষড়যন্ত্রের স্থায়ীত্ব বেশিদিন হয় না। একটা 'চক্র' আমার বিরুদ্ধে 'প্রি প্ল্যান' করে মাঠে নেমেছে। আসলে কি করে লাভ নেই, ঐ যে বললাম না রঙিন যুগে সাদাকালো ছবি দিয়ে লাভ নেই... পারলে বাসরঘরের ভেতরের একটা ছবি দেখাক, এইসব 'কারিকুরি' ছবি দিয়ে লাভ নেই। পরীমনি একটানা বলে গেলেন।
সূত্র : দৈনিক কালের কন্ঠ 
বিভাগ:

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.