সাময়িকী.কম

অনেক দিন ধরে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা ফেসবুকে লাইক বাটনের পাশাপাশি ডিসলাইক বাটনও দাবী করে আসছিল। এতদিন ফেসবুক এ বিষয়ে চুপ থাকলেও গেল সপ্তাহে অনুষ্ঠিত ফেসবুকের প্রশ্নত্তোর ইভেন্টে ঠিক এ প্রশ্নের জবাব দেন মার্ক জাকারবার্গ নিজেই।


তিনি বলেন, 'আমরা এরকম বিষয় নিয়ে কাজ করছি। তবে ধারণাটা কিছুটা ভিন্ন। আমরা ডিসলাইক নয় বরং মানুষ যাতে একজন আরেকজনের প্রতি সহানুভূতি দেখাতে এরকম বিষয় নিয়ে কাজ করছি।' তাই ফেসবুকের নতুন এই বাটনকে অনেকে এম্প্যাথি বাটন বলছে।

আর এদিকে ২০১৪ সালের ২৩ ডিসেম্বর ফেসবুক নিবন্ধিত ইমোজি রিয়্যাকশনের পেটেন্টে দেখা যায় লাইক বাটনের পাশাপাশি ব্যবহার করা যাবে এই ইমোজিগুলো। ইমোজি ব্যবহারে বেশ অনেকগুলো অপশন দেয়া থাকবে সেখান থেকে মানানসই যেকোনো ইমোজি দেওয়া যাবে।



নিজস্ব ইমোজি আর্ট তৈরি করেছে ফেসবুক কিন্তু পেটেন্ট অনুযায়ী ব্যবহারকারীর পোস্টে বিশৃঙ্খলা এড়াতে ইমোটিকন্স এর ব্যবহার সীমাবদ্ধ করে দেওয়া হবে। ছবিতে আরও দেখা যায় ইমোজি রিয়্যাকশনের পাশে ইউজার আইকনও থাকতে পারে। যেমনটা লাইক বাটনের ক্ষেত্রে দেখা যায়।


এদিকে গত মঙ্গলবার জাকারবার্গ বলেন ফেসবুক খুব শীঘ্রই পাবলিক টেস্টিং শুরু করবে। তাই হঠাৎ কোনদিন যদি লাইক বাটনের পাশে এমন ইমোটিকন্স দেখতে পান তাহলে অবাক হবেন না।

তথ্যসূত্র: দ্যনেক্সটওয়েব

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.