সাময়িকী.কম
ফ্রান্স ও মালয়েশিয়ার সরকারের কাছ থেকে দু ধরনের মন্তব্য পাওয়া ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েছেন নিখোঁজদের স্বজনেরা।

ভারত মহাসাগরীয় দ্বীপ রিইউনিয়নে বিমান, হেলিকপ্টার এবং নৌযান পাঠাচ্ছে ফ্রান্স। মালয়েশিয়ার নিখোঁজ বিমান এমএইচ ‘থ্রি -সেভেন-জিরো’র আরও ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পাবার আশায় ফ্রান্স এই তল্লাশি অভিযান শুরু করতে যাচ্ছে।
ইতিমধ্যেই তারা প্রতিবেশী মরিশাস ও মাদাগাস্কার দ্বীপের কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছে যেন তারা তাদের উপকূলীয় এলাকায় জোর তল্লাশি চালায়।
তবে ফ্রান্স ও মালয়েশিয়ার সরকারের কাছ থেকে দু ধরনের মন্তব্য পাওয়া ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েছেন নিখোঁজদের স্বজনেরা।
মালয়েশিয়া সরকার বুধবার নিশ্চিত করে যে, সপ্তাহখানেক আগে ওই দ্বীপ এলাকায় পাওয়া উড়োজাহাজের ডানার অংশটি নিখোঁজ এমএইচ থ্রি-সেভেন-জিরো ফ্লাইটেরই অংশ।
সপ্তাহখানেক আগে রিইউনিয়ন দ্বীপে একটি বিমানের ডানার অংশ খুঁজে পাওয়া যায়। (ফাইল ফটো)
তবে, ফ্রান্সের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, টুকরোটি যে কোন একটি বোয়িং ৭৭৭ এর অংশ, সে সন্দেহ নেই। কিন্তু এই টুকরোটি এমএইচ থ্রি-সেভেন-জিরো’র কিনা, সে বিষয়ে শতভাগ নিশ্চিত হতে আরো কিছু পরীক্ষা করা হবে।
আর দু’পক্ষের এমন মিশ্র বক্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নিহতের স্বজনেরা।
বিমানটির বেইজিং অফিসের সামনে অনেক চীনা নাগরিক এর প্রতিবাদও জানিয়েছেন।
প্যারিস থেকে বিবিসির সংবাদদাতা জানাচ্ছেন, ফরাসি প্রসিকিউটর সের্গে ম্যাকওয়্যাক সতর্ক অবস্থায় থাকতে ওই মন্তব্য করেছেন।
২৩৯ জন যাত্রী ও ক্রু নিয়ে কুয়ালালামপুর থেকে বেইজিং-এ যাবার পথে গত বছরের মার্চে বিমানটি রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যায়।
এর পর থেকেই সন্দেহ করা হতো, বিমানটি হয়তো ভারত মহাসাগরের দক্ষিণ অংশে বিধ্বস্ত হয়েছে। বিমানটির পরিণতি সম্পর্কে এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। সূত্র : বিবিসি।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.