নিজস্ব প্রতিবেদক 
সাময়িকী.কম

ডয়চে ভেলে বা ডিডাব্লিউ জার্মানির আন্তর্জাতিক বেতার সংস্থা আয়োজিত ‘দ্য বব্স – বেস্ট অফ অনলাইন অ্যাক্টিভিজম’ প্রতিযোগিতা-২০১৫ তে বাংলা ভাষা বিভাগে চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছে বিশ্বের প্রথম অনলাইন কার্টুন ম্যাগাজিন - টুনস ম্যাগ (বাংলা ভার্সন)৷

এ বিষয়ে টুনস ম্যাগ প্রকাশক ও প্রতিষ্ঠাতা কার্টুনিস্ট আরিফুর রহমান বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে ডয়চে ভেলের অনলাইন অ্যাক্টিভিজম অ্যাওয়ার্ড ‘দ্য বব্স’ এর বাংলা ভাষা বিভাগে টুনস ম্যাগ চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছে। টুনস ম্যাগ পিপলস চয়েচ ফর বেঙ্গলী বিভাগে রয়েছে এবং অনলাইন ব্যবহারকারীদের ভোটে এই বিভাগে চূড়ান্ত বিজয়ী নির্ধারণ করা হবে৷ 

তিনি টুনস ম্যাগকে ভোট দেয়ার জন্য আন্তরিক ভাবে সকলকে অনুরোধ করেছেন। তিনি বলেন, 'আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতা আমাদের জয়ের লক্ষ্যে পৌছে দিতে পারে। টুনস ম্যাগকে ভোট করুন আর বাক স্বাধীনতাকে সমর্থন করুন।'

জানা গেছে, প্রতিযোগিতার ভাষাভিত্তিক ১৪টি বিভাগে চূড়ান্ত প্রতিযোগীদের উপরে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের ভোট চলবে ৯ এপ্রিল থেকে ৩ মে পর্যন্ত৷ প্রতিটি ভাষাভিত্তিক বিভাগে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মাত্র একবারই ভোট দেওয়া যাবে৷ যে প্রতিযোগী সবচেয়ে বেশি ভোট পাবেন, তিনিই ‘পিপলস চয়েস’ জয়ী হবেন৷ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী এবং জুরিমণ্ডলীর বিবেচনায় নির্ধারিত সব বিজয়ীর নাম ৩ মে, ২০১৫ তারিখে বব্স-এর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে৷ শুধুমাত্র ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড’ বিজয়ীদের এবং ডয়চে ভেলের ‘মত প্রকাশের স্বাধীনতা’ অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীকে পুরস্কার গ্রহণের জন্য জার্মানির বন শহরে আসার আমন্ত্রণ জানানো হবে৷

২৩ জুন, ২০১৫ তারিখে জার্মানির বন শহরে অনুষ্ঠেয় ডয়চে ভেলের ‘গ্লোবাল মিডিয়া ফোরাম’ সম্মেলনে বব্স ২০১৫ ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড’ বিজয়ীদের পুরস্কার দেয়া হবে৷

ভোট দেয়ার জন্য লগ ইন করুন: https://thebobs.com/bengali/category/2015/peoples-choice-for-bengali-2015/

উল্লেখ্য: ২০০৪ সালে এই পুরস্কার চালু করা হয়৷ উদ্দেশ্য, ইন্টারনেটের মাধ্যমে মতবিনিময়ের বৈচিত্র্য এবং তাৎপর্যকে তুলে ধরা, সেই ধরনের মতবিনিময়ের শ্রেষ্ঠ নমুনাগুলিকে পেশ করা এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে আলাপচারীর ব্যাপারে বিভিন্ন ভাষার ব্লগারদের মধ্যে একটি সংলাপ সৃষ্টি করা৷
জার্মানির আন্তর্জাতিক বেতার সংস্থা ডিডাব্লিউ প্রতিষ্ঠানটির কাজ হলো, জার্মানিকে ইউরোপের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত একটি জাতি ও সংস্কৃতি হিসেবে, এবং আইনের শাসন ও ব্যক্তিস্বাধীনতার ভিত্তিতে গড়ে ওঠা একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে বহির্বিশ্বের কাছে তুলে ধরা এবং বিভিন্ন জাতি ও সংস্কৃতির মানুষদের মধ্যে সমঝোতা বৃদ্ধি করা৷ ডয়চে ভেলে টেলিভিশন, বেতার এবং ইন্টারনেটে বিভিন্ন ভাষায় অনুষ্ঠান সম্প্রচারের মাধ্যমে এই দায়িত্ব পালন করে চলেছে৷

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.