আজিম আকাশ

একরাশ আঁধারের মাঝে হাঁটতে হাঁটতে
এক ফালি আলোর পথ খুঁজে বেড়াই,
টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়ার ধূসর প্রান্তর-
উত্তর মেরু থেকে দক্ষিণ মেরুর অচেনা পথে
আজো খুঁজে ফিরি এক ফালি চাঁদের বিকিরণ;
যা দূর করতে পারে জাতির ভয়াবহ বিভীষণ।

সভ্যতা থেকে সভ্যতার ক্রমশ বিবর্তন;
কতটুকু হয়েছে দেশের আদল পরিবর্তন?
এটা শুধু সভ্যতার দেয়ালে মাথা ঠুকে মরা-
নিপীড়িত জনতার আত্নজিজ্ঞাসাই নয়,
অজস্র আঘাতে হৃদয়ের রক্তক্ষরণও বটে।


তবে কি এভাবেই ধেই ধেই করে চলবে-
রুগ্ন জাতির নিদারুণ অনিশ্চিত ভবিষ্যত?
দিন যায় দিন আসে, দিন বদলের পালায়;
বদলে যাও, বদলে দাও শ্লোগান প্রতীকী মাত্র-
বাস্তবতার ছোঁয়া নেই তা বুকের জ্বালা বাড়ায়।


স্বপ্নাক্রান্ত জনতা যুগ যুগ স্বপ্নকে আঁকড়ে ধরে
বার বার আশায় বুক বাঁধে, তবুও যদি আসে-
বাংলায় একটি আচমকা আমূল পরিবর্তন;
জনতার আমরণ দাবিগুলো আজ কেবলই
ধূসর কুয়াশা হয়ে বাংলার প্রকৃতিতে,
দীর্ঘ:শ্বাস রুপে বিস্তার করছে টেকনাফ থেকে-
তেঁতুলিয়ার শহর-গ্রামময় প্রতিটি প্রান্তর;
তবে কি জাতির বিবেক আজ শুধুই প্রশ্নবিদ্ধ?
আর কত থাকবে আশাহত, জনতার অন্তর?


এই কি তবে আমার ৩০ লাখ প্রাণের-
আত্মাহুতিতে অর্জিত স্বাধীন সার্বভৌম দেশ;
রাজনৈতিক যাঁতাকলে পিষ্ট হয়ে যুগের পর যুগ
এভাবেই হবে কি তবে তিলে তিলে নিঃশেষ?
যদি তাই হয় তবে ১৬ কোটি বাঙ্গালির শির-
উচু করে গর্জে উঠার এখনই অতি প্রয়োজন;
নয়তো একরাশ আঁধারের গর্ভে লীন হতে হতে
ফিরে আসবে আবার প্রাগৈতিহাসিক বিভীষণ।

টঙ্গিবাড়ি, মুন্সীগঞ্জ।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.