সাময়িকী.কম
কিছুদিন ধরেই আপনার প্রিয় মানুষটির স্বভাব, আচরণ একটু যেন কেমন লাগছে আপনার। কেমন যেন একটু ভিন্ন মানুষ হয়ে গিয়েছে সে। আপনাকে আর আগের মত সময় দেন না তিনি। আর তাই আপনি সন্দেহ করা শুরু করেছেন তাকে। গোয়েন্দাগিরি করা শুরু করেছেন আপনি তার সাথে।
এমন ভুল অনেকেই করে থাকেন। ভালোবাসার সম্পর্কটা একটু একঘেয়ে হয়ে গেলে অথবা প্রিয় মানুষটা খানিকটা বদলে গেলেই অনেকেই অনর্থক সন্দেহ করা শুরু করেন কাছের মানুষটিকে। কিন্তু কি লাভ গোয়েন্দাগিরি করে? বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই গোয়েন্দাগিরি করা সম্পর্কে সুফল বয়ে আনে না বরং সম্পর্কটা আরো খারাপ হয়ে যায়। জেনে নিন ৩টি কারণ সম্পর্কে যেগুলোর জন্য ভালোবাসায় গোয়েন্দাগিরি করাটা একেবারেই অনর্থক।

যা নয় তা মনে হবে

আপনি যদি আপনার ভালোবাসার মানুষটির পেছনে একবার গোয়েন্দাগিরি শুরু করেন তাহলে আপনার মনে এমন অনেক সন্দেহ জাগবে যার কোনো ভিত্তি নেই। সব কিছুকেই তখন সন্দেহজনক মনে হবে। সঙ্গীর সকল কাজ কর্ম নিয়েই আপনি সন্দেহ করা শুরু করে আপনার ভালোবাসার মানুষটির জীবন অতিষ্ট করে দিবেন আপনি।

আপনি ধরা পরে যেতে পারেন

আপনার সঙ্গীর সাথে আপনার মধুর সম্পর্কটি মূহূর্তেই শেষ হয়ে যাবে যদি আপনি গোয়েন্দাগিরি করে ধরা পড়ে যান। আপনার সঙ্গী যদি সন্দেহ করার মত কোনো কাজও করে থাকে তাহলেও বিষয়টি নিয়ে তিনি মনঃক্ষুণ্ণ হবেন এবং আপনার সম্পর্কের ভিত আরো বেশি নড়বড়ে হয়ে যাবে। ফলে সম্পর্কটি টেকার আশা যতটুকু ছিলো, ততোটুকুও আর থাকবে না।

পরবর্তীতে অনুশোচনায় ভুগবেন

ধরুন আপনি আপনার সঙ্গীর পেছনে গোয়েন্দাগিরি করলেন। পুরো বিষয়টি আপনার সঙ্গীও কিছু বুঝলেন না। কিন্তু এই ব্যাপারটি নিয়ে আপনি জীবনে একবার হলেও অনুশোচনায় ভুগবেন। বিশেষ করে আপনার সঙ্গী যদি নির্দোষ হয় তাহলে সঙ্গীকে অহেতুক সন্দেহ করার অনুশোচনা আপনাকে কুড়ে কুড়ে খাবে।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.