তৌফিক আলম
অলংকরণ: তুলিঅলংকরণ: তুলিব্যাগটা খুলেই অবাক হলো রফিক। ব্যাগের মধ্যে এক বান্ডেল ৫০০ টাকার নোট। ঝটপট টাকাগুলো গুনে ফেলল সে। পুরো ৪০ হাজার টাকা। কেবল টাকা নয়, ব্যাগে আরও আছে আইফোন, চুলের খোঁপা, পারফিউম আর ‘সুমি প্লাস ইমরান’ লেখা একটি সাদা রুমাল।
রাতে টিউশনি থেকে মেসে ফেরার সময় পথে একটি লেডিস ব্যাগ পেয়েছে রফিক। ব্যাগ থেকে সবকিছু বের করার পর টাকার বান্ডেলটা ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে দেখতে লাগল সে। কিছুদিন বাদে ঈদ। রফিক মনে মনে ভাবল, টাকাগুলো থাকলে এবারের ঈদটা বেশ ভালোই কাটবে।
রফিকের বাড়ি গ্রামে। সেখানে তার মা-বাবা, স্বামী পরিত্যক্ত বোন আর বোনের ছয় বছরের এক মেয়ে থাকে। রফিকের দিনমজুর বাবা সংসার চালাতে প্রতিনিয়ত হিমশিম খাচ্ছে। তাদের ঈদ কখনোই ভালো কাটে না। এই টাকা দিয়ে রফিক বাড়ির সবার জন্য ঈদের কেনাকাটা করবে। ঈদের দিন তাদের বাড়িতে রান্না হবে মজার সব খাবার। অত্যন্ত জাঁকজমকপূর্ণভাবে এবারের ঈদ উদ্যাপন করবে তারা। এসব চিন্তাভাবনায় রফিক যখন বিভোর, তখন ব্যাগে পাওয়া আইফোনটা বেজে উঠল। ফোনের পর্দায় লেখা, ‘মাই সুইট...’। রফিক ভাবল, যার ব্যাগ, তার স্বামী হয়তো কল করেছে। তার স্বপ্নভঙ্গ হলো। এখন সে কী করবে বুঝে উঠতে পারছে না। ফোন অফ করবে, নাকি রিসিভ করে সততার পরিচয় দেবে। ২৪ বছরের জীবনে সে জেনেশুনে কখনো অসৎ কাজ করেনি। আজও তার ব্যতিক্রম ঘটল না। রফিক ফোন রিসিভ করে বলল, হ্যালো...

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.