নিউইয়র্কে বেহুলা
........................
........হয়তো হারিয়ে যাওয়া কন্যা তুমিসাপে কেটেছিলভাসিয়ে দিয়েছিল জলে
....নিউইয়র্কের পর্নশালায়প্রচুর খিস্তির পর তোমাকে খুঁজে পেয়েছে লখিন্দর
.কন্যাগো এখন তুমি পাশফিরে কোথায় যাবেদেহবাজারইতো তোমার অন্দর
.....ম্যানহাটনের ব্যস্ত পিঁপড়েগুলোও জানে ব্যাপক বাঁচা বাঁচা-যায় প্রচুর অর্থ হলে!

এদিকে অপরাধবোধে ভুগছে নিস্পাপ সাপকেন সে না জেনে করেছিল দংশন
.....পাশাপাশি দাঁড়ানো ট্রেনযাত্রীশূন্য ওয়াগননির্জন প্লাটফর্মব্যর্থ জংশন
.বড়ো বড়ো দালানকেন মনে পড়ে খালি লাল পিঁপড়া আর মাটির ঢিবি?
...................... .....কোন দিকে যাবে কন্যা , প্রবাসিনী বেহুলা বিবি?

ভাসানো হয়েছে কন্যারে জলেযদি তারে খুঁজে পায় নবীন ওঝায়
আবদুল গফুরের দিন কাটছে হয়তো ছনের ছাদে গরু খোঁজায়!



কোথাও বিশ্বস্থ আগুন নাই
...................................................................
ওই যে নদীর পাড়ে ... আগুন জ্বলছে চিতায়....আসলে কে পুড়ে যাচ্ছে বলুন তো?
আগুনে পোড়ার সামান্য সুবিধা পেয়েছিল শ্রীমতি সীতা
আমিও সতী হতে চাইতেমন যোগ্য আগুন কোথায় পাই?

ইলেকট্রিকের হিটারে জ্বলে যাবার মধ্যে তেমন কৃতিত্ব নেই
শর্টসার্কিট জীবনে ঝগড়া করে জ্বলে যাবার মধ্যেও নতুনত্ব নেই

পুড়ে যেতে আগ্রহী....নীল চিতায়.....
ঘুরে ঘুরে দেখেছি বার্ন-ইউনিট কোথাও বিশ্বস্থ আগুন নাই


শাহজাহানের চেয়েও ভাল প্রেমিক তাজমহলের নির্মাণ শ্রমিক
.............................................................................................
উচ্চাভিলাষ হচ্ছে একটা ত্রুটিপূর্ণ লন্চ, ঢাকা টু পটুয়াখালি, সামান্য ঝড়ে ডুবে যায়
হামজাও তাকে খুঁজে পায় না, তারচে ভ্রমণশীল কচুরি উত্তম
কেমন হেসে..... ভেসে চলে যায়..... শোনগো কচুরিপানা আমি তোমাদের দলে

ঢেউয়ের উপর পা তুলে বসে আছি, কোথাও যাবার কথা ছিল হয়তো
তরঙ্গের পর তরঙ্গ আসছে, শুশুকের মতো ডুবে যায় আশা
জানি কেবল, ভালবাসা ছাড়া আমার হারাবার মতো কিচ্ছু নেই
তাই ভয়ে ভয়ে তোমাকে ডাকাডাকি করি হে উড়ুক্কু পুত্র ইকারুস
আমাকে ধার দাও একটা সুললিত কাচের আকাশ, নিজেকে দেখি।

না বুঝে করেছি অহংকার বোকার মতো আমি বোধ হয় ভাল প্রেমিক
বুঝিনি শাহজাহানের চেয়েও ভাল প্রেমিক তাজমহলের নির্মাণ শ্রমিক।


হয়তো ঘুম ধরেছে
..........................................................................
এমনতো নয় ঘুমাবার বদলে মৃত্যুর প্রস্তুতি নিচ্ছি
স্নানের বদলে ময়লা মাখছি জামা ও জুতোয়
এমন তো নয় আগমনের সূত্র ধরে বিদায়ের স্তুতি দিচ্ছি
গোধূলি মেখে নিচ্ছি কাটা ঘুড়ির সুতোয়

আমি আসলে ভাবছি না কোথাও যাবার কথা
তোমার নখদর্পণে ভেসে উঠুক আমার মুখ
হয়তো ঘুম ধরেছে ঘুমাও আমি জেগে রব অযথা


ওই যে অপেক্ষারত কলিঙ্গ-ফেরত সম্রাট অশোক!

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.