সাময়িকী.কম
প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ বলেছেন, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। নির্বাচনে কেউ অপরাধ করলে, তিনি যদি সাংসদও হন, অপরাধ প্রমাণিত হলে তাঁকেও আইনের আওতায় আনা হবে। নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা হলে তা-ও কঠোরভাবে দমন করা হবে।

আজ বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের উপনির্বাচনে ভোট গ্রহণ শেষে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ের মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সিইসি এ কথা বলেন।

উপনির্বাচনে ভোট গ্রহণ চলার সময় আওয়ামী লীগের সাংসদ শামীম ওসমান পুলিশের একজন কর্মকর্তাকে হুমকি দেন বলে অভিযোগ ওঠে। এ বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের প্রশ্নের উত্তরে সিইসি বলেন, বিষয়টি তদন্ত করা হবে। তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সিইসি জানান, দুজন বিচারকের নেতৃত্বে ‘ইলেকশন ইনকোয়ারি কমিটি’ রয়েছে। তাঁরা তদন্ত করে দেখবেন। এ ছাড়া যেকোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ বা নির্বাচন নিয়ে অন্য কোনো অভিযোগ পেলেও তা তদন্ত করে দেখা হবে।

নির্বাচন-পূর্ব অভিযোগের বিষয়ে সিইসি বলেন, দুজন প্রার্থী পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন। তবে তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিবেদন অনুযায়ী নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে বলে দাবি করলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। তিনি জানান, ১৪১টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হয়েছে। এর মধ্যে মাত্র একটি কেন্দ্রে সহিংসতা হওয়ায় ভোট বাতিল করা হয়েছে।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.