সাময়িকী.কম
ভোজন রসিক মাত্রই জানেন পুরনো ঢাকার রয়েল হোটেলের নাম। হরেক রকমের কাবাব ও বিরিয়ানি তো আছেই, সেই সাথে রয়েল বিখ্যাত তাঁদের "ঠাণ্ডাই" এর জন্য। অন্যান্য খাবারের পাশাপাশি এখানে ঠান্ডা-জাতীয় খাবার মিলবে লাবাং, বোরহানি, মালাই কুলফি, ফালুদা, লাচ্ছি, পাঞ্জাবি লাচ্ছি, দইবড়া এবং পেস্তাবাদামের শরবত।
লালবাগ এলাকার ৪৪ হরনাথ ঘোষ রোডে অবস্থিত রয়েল হোটেলের কোথাও কোনো শাখা নেই। তাঁদের দাবী এখানে কোনো বাসি খাবার বিক্রি হয় না, এমনকি একবার তেল পুড়লে সেটা দ্বিতীয়বার ব্যবহার হয় না। কমবেশি সকল খাবারই এখানে সুস্বাদু ও মজাদার। তবে তাঁদের পেস্তাবাদামের শরবতের জুড়ি মেলা ভার।
দারুণ বিখ্যাত এই পেস্তা বাদামের শরবতের জন্য ভিড় এখানে লেগেই থাকে। বিশেষ করে রমজানের দিন হলে তো কথাই নেই/ এখানে এক লিটার পেস্তাবাদামের শরবতের দাম হলো ২২০ টাকা।
জানতে চান রয়েলের সেই বিখ্যাত পেস্তা বাদামের শরবত রেসিপি? আসুন, তাহলে জেনে নেই।

উপকরণ

পেস্তাবাদাম- আধা কাপ
মালাই- আধা কাপ
দই- এক কাপ
খাঁটি জাফরান দুধে ভেজানো- সিকি চা চামচ
চিনি পরিমাণমতো,
তরল দুধ- আড়াই কাপ
কেওড়া পানি ও গোলাপ জল- আপনার স্বাদ মত

প্রণালি

  • -দই, মালাই, দুধ ও চিনি ঘুঁটনি দিয়ে ঘুঁটে নিন। কিংবা ব্লেন্ডারে ভালো করে মিশিয়ে নিন।
  • -পেস্তা বাদাম খোসা ছাড়িয়ে মিহি কুচি করে নিন। ও অর্ধেকটা এই মিশ্রণে দিয়ে আবারও মেশান। জাফরান মিশিয়ে দিন। কেওড়া পানি ও গোলাপ জল দিন খুব সামান্য করে। করা গন্ধ হবে না।
  • -এবার শরবত ফ্রিজে ঠাণ্ডা হতে দিন। পরিবেশনের ঠিক আগে ঠাণ্ডা শরবত আরেকবার ভালো করে ঘুটে নিন ও বাদাম ছিটিয়ে পরিবেশন করুন।
  • -একবার এ শরবত তৈরি করলে তা ডিপ ফ্রিজে তিন দিন রেখে খাওয়া যাবে। তবে একবার মুখ বা বোতলের ছিপি খুললে পুরো শরবত সে সময়ই খেয়ে ফেলতে হবে।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.