নারীরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিয়ে করতে ভয় পেয়ে থাকেন শ্বশুড় শ্বাশুড়ি কেমন হবেন এই ভেবে। কারণ শ্বাশুড়ির সাথে ঝামেলা হয় না এমন পরিবার মনে হয় খুব কমই আছে। আবার শ্বশুড়-শ্বাশুড়ির অত্যাচারে অনেক নারীকে আমাদের সমাজেই অকালে জীবন দিতে হয়েছে। তবে বর্তমানের নারীরা অনেক বেশি বুদ্ধিমতী। তারা জানেন কীভাবে শ্বশুড়-শ্বাশুড়ির সাথে ভালোভাবে থাকা যায়। হাজার হোক সবাই মানুষ। দয়া মায়া মমতা সবার মাঝেই আছে। এ কারণে একটু বুদ্ধি করে আর মানিয়ে চললেই শ্বশুড়-শ্বাশুড়ি নিজের বাবা মায়ের মতই আপন হয়ে উঠতে পারেন।

১. সেবা করুন :

শ্বশুড় শ্বাশুড়িকে আপন করে নিতে পারেন একমাত্র আপনিই। আপনিই পারেন সম্পর্কটাকে অনেক বেশি সহজ করে নিতে। কেননা আপনি শিক্ষিত একজন মানুষ্ আপনি আপনার শ্বশুড় শ্বাশুড়ির মানসিকতাকে বুঝতে পারেন। তাই তাদের মত করেই তাদের কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করুন। নিজের বাবা মায়ের মতই সেবা শুশুস্রা করুন। দেখবেন আপনার প্রতি তাদের একটা মায়া এবং ভালোবাসা তৈরি হয়েছে।

২. সম্মান করুন :

সবসময় তাদের সাথে সম্মান করে কথা বলুন। স্বাভাবিকভাবেই নিশ্চয়ই ছোটবেলা থেকে শিখে এসেছেন যে মুরুব্বিদের সম্মান করতে হয়। সেভাবেই তাদের সম্মান করুন। একজন সাধারণ মানুষের প্রতিও মানুষের মায়া তৈরি হয়ে যায় যদি সে সম্মান করে কথা বলে আর সেখানে আপনি তো তাদের ছেলের বৌ। এমন হতে পারে যে তাদের কিছু ভ্রান্ত ধ্রান ধারণা রয়েছে। আপনি সেগুলো সুন্দরভাবে বুঝিয়ে বলুন। তাতেও কাজ না হলে সেটি মানিয়ে চলার চেষ্টা করুন। একটা বিষয় সবসময় মনে রাখবেন আপনি আপনার শ্বশুড় শ্বাশুড়ির সাথে যেমনটা করবেন আপনার ছেলের বউও তেমনটাই করবেন। তাই মানিয়ে চলার চেষ্টা করুন, পরিবারটিকে সুখী রাখুন।

৩. পরামর্শ নিন :

যেকোনো বিষয়ে আপনার শ্বশুড় শ্বাশুড়ির কাছ থেকে পরামর্শ নিন। ধরুন আপনি কোনো বিপদে পড়েছেন বা অন্য কোনো সমস্যা পরামর্শ নিন। এতে করে তারা ভাববেন যে আপনি তাদের মূল্য দেন এবং সম্মান করেন। ফলে তারা আপনার উপরে অনেক বেশি খুশি হবেন।

৪. নিজের পরিকল্পনার কথা বলুন :

অনেক শ্বশুড় শ্বাশুড়ি আছেন যারা বিয়ের পরপরই বাচ্চা নেয়ার জন্য জোর করে থাকেন। এতে করে তাদের সাথে বৌদের সম্পর্ক খারাপ হয়ে যায়। এমন অবস্থাতে আপনি যদি থেকে থাকে তাহলে আপনি আপনার পরিকল্পনাটি সম্পর্কে শ্বশুড় শ্বাশুড়িকে বুঝিয়ে বলুন। আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝালে তারা আর কোনো বিষয়েই দ্বিমত পোষণ করবেন না। ফলে তাদের সাথে আপনার সম্পর্ক ভালো হয়ে যাবে।

৫. উপহার দিন :

যেকোনো সম্পর্ক ভালো রাখার একটি উৎকৃষ্ট মাধ্যম হল উপহার দেয়া। আপনার শ্বশুড় শ্বাশুড়ির সাথে সম্পর্ক ভালো রাখতে হলেও তাদেরকে সুন্দর সুন্দর উপহার দিন। শ্বাশুড়িকে সুন্দর শাড়ি উপহার দিতে পারেন। শ্বশুড়কে পাঞ্জাবী বা পছন্দের কোনো কিছু উপহার দিতে পারেন। তাহলে তাদের সাথে আপনার সম্পর্কটি অনেক মধুর এবং ভালো থাকবে।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.