বলিউডের রজনিকান্ত হবার মতো একজনই রয়েছেন আর তিনই হলেন সোনার হৃদয়ের অধিকারী সালমান খান। এই অভিনেতা তার প্রতিটি সিনেমায় সুনিপুন অ্যাকশন স্টান্টের জন্য বরাবরই আলোচিত। আর সালমানের এই দুঃসাহসিক অ্যাকশন স্তান্ট গুলোই তাকে এনে দিয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। আর এই কারণেই সালমানকে বলিউডের পরবর্তী রজনিকান্ত হিসেবেই ধরা হচ্ছে। যদিও একটি সাক্ষাৎকারে সালমান খান বলেন, তার কমপক্ষে আরো ২০ বছর লাগবে রজনিকান্তের কাছাকাছি যেতে।
সাধারণ মানুষকে প্রভাবিত করার ব্যাপারে সবচাইতে এগিয়ে যে রজনিকান্ত একাই, তাতে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু এই দিক থেকে পিছিয়ে নেই সালমান খান। সাধারণ মানুষকে নাড়া দেবার এক অদ্ভুত ক্ষমতা রয়েছে এই অভিনেতার মধ্যেও। সালমান তার আশেপাশের সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে থাকেন সর্বদাই। শুধু তাই নয়, রজনিকান্ত যেমন শাহরুখ খানের কথা রাখতে ‘রা ওয়ান’ সিনেমায় অল্পসময়ের জন্য উপস্থিত হন। ঠিক তেমনি সালমান খান নতুনদের নান সময় টিপস দিয়ে আসছেন আর সালমানের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন বলিউডের এসময়ের ক্রেজ অর্জুন কাপুর, পুল্কিত সম্রাট, জেরিন খান এবং ক্যাটরিনা কাইফ। শুধু তাই নয় বলিউডের গোবিন্দ এবং মিথুন চক্রবর্তীর মতো তারকাদের দিয়েছেন বডি ফিটনেসের টিপস।
ঠিক রাজনিকান্তের মতই প্রকৃত পক্ষেই সালমান একজন সত্যিকারের এন্টারটেইনার। তার বচনভঙ্গী এবং নাচার দক্ষতা বরাবরই ভক্তদের বিমোহিত করে তোলে। আর দক্ষিণী সিনেমা জগতে রাজনিকান্ত যেমন স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যের ছাপ ফেলতে সক্ষম হয়েছেন, ঠিক তেমনি সালমান খান বলিউডে। এই দুই তারকারা দুজনেই নিজের স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যের ছাপ ফেলতে সক্ষম হয়েছেন।
বলিউডে সালমান খানই কেবল একমাত্র নায়ক যিনি সকল বয়সের ভক্তদের কাছে সমান জনপ্রিয়। তবে রজনিকান্তের ফ্যান ফোলোইংয়ের তো যেন শেষ নেই। ঠিক রজনিকান্তের মতো সালমান খানও তার সিনেমার জন্য জানপ্রান দিয়েই খাটেন। আর তার এই বৈশিষ্ট্যই তাকে করেছে সবার থেকে আলাদা। এবং এ কারণেই সালমান খান বলিউডের সবথেকে চাহিদাসম্পন্ন নায়ক।
সমাজের উন্নয়নে বরাবরই তারকারা তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী দান করে থাকেন। তবে রজনিকান্ত যেন সবার চাইতে এগিয়ে। তবে কি পিছিয়ে আছেন সালমান খান না মোটেই না আর চ্যারিটি কাজে এগিয়ে থাকার কারণেই তো সালমান খান পেয়েছেন সোনার হৃদয়ের অধিকারীর খেতাব।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.