কিছুদিন আগে কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়ে ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন ভালোবাসার মানুষটিকে। অথচ আপনারা একই অফিসে কাজ করেন। রোজ অনেকটা সময় ধরে আপনাদের একসাথে সময় কাটাতে হয়। কোন না কোন প্রয়োজনে কথা বলতেই হয়। কি করবেন? কীভাবে সামলাবেন নিজেকে আর নিজের চারপাশের পরিস্থিতিকে? নীচে আপনার জন্যই দেওয়া হল বেশ কয়েকটি টিপস -

১. আবেগ চেপে রাখুন

ব্রেক-আপ যদি খুব বেশিদিন আগের না হয়ে থাকে তাহলে এটা খুবই স্বাভাবিক যে কিছুদিন আগে হারিয়ে ফেলা ভালোবাসার মানুষটিকে দেখে আপনার ভেতর আবেগ কাজ করবে। যদি তাই হয় তাঞরে আবেগকে আর নিজের গতিতে কাজ করতে দিন। তবে সবটা আপনার ভেতরে। ভুলেও তাঁর সামনে চোখে পানি আনবেন না বা এমন কোন কাজ করবেননা যাতে সে আপনার দূর্বলতা ধরে ফেলতে পারে।

২. কান্না করুন

সদ্য ব্রেক-আপ হলে মন খারাপ থাকতেই পারে। আর মনকে হালকা করার সবচাইতে ভালো উপায় হল খানিকটা সময় কেঁদে নেওয়া। নিজের একান্ত সময়ে মন চাইলেই খানিকটা কেঁদে নিন।

৩. পেশাদারিত্ব দেখান

যাই হোক না কেন, ৯ টা থেকে ৫ টা- এই সময়টা আপনার পুরোটা পেশাদারিত্ব দেখান। মন দিন এতদিন অবহেলা করে ফেলে রাখা কাজগুলোকে। সাবেক ভালোবাসার সাথে যতটা সম্ভব কথা কম বলুন। আর বললেও আবেগপ্রবন কথাগুলো না বলে, নিজের খারাপ লাগার কথা না শুনিয়ে বলুন কাজের কথা। আর যদি অপর দিক থেকেই আবেগতাড়িত কথাগুলো আসে তাহলে সহকর্মীর অপেশাদারিত্বের ওপর বিরক্ত হচ্ছেন এমন মনোভাব ব্যক্ত করুন।

৪. সহজ হওয়া

সাবেক ভালোবাসার মানুষটির ওপর সহকর্মীসুলভ দৃষ্টিভঙ্গী প্রকাশ করুন এবং তাকে আলাদা মনযোগ দেওয়া বন্ধ করুন। যত তাড়াতাড়ি সহজভাবে কথা বলতে পারবেন তার সাথে, ততই পুরো ব্যাপারটা সহজ হয়ে আসবে।

৫. গোপন করা

অফিস ও ব্যক্তিগত জীবনকে গুলিয়ে ফেলবেন না। নিজের একান্ত কিছু বন্ধুর সাথে শেয়ার করুন ব্রেক-আপের ব্যাপারটি। কিন্তু ভুলেও অফিসের কাউকে জানাবেন না। এতে সমস্যা আরো বাড়বে।

৬. সামলে চলুন

মনে যতই তিক্ততা থাকুক, সেটাকে অফিসের মধ্যে ভুলে যান। কখনোই সাবেকের সাথে রাগের মাথায় খারাপ আচরণ করবেননা। এতে আপনারই সমস্যা হবে।

৭. হঠাৎ সিদ্ধান্ত না নেওয়া

ব্রেক-আপের ওপর নির্ভর করে আপনার পেশা বদল করার সিদ্ধান্ত ভুলেও নেবেননা। এতে করে আপনার এতদিনের পরিশ্রম এবং আপনি নিজে- দুটোই আপনার সাবেক ভালোবাসার কাছে হেরে যাবে।
বিভাগ: ,

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.