একবিংশ শতাব্দীর বিভিন্ন রোগের এক পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে এ শতাব্দীতে প্রযুক্তির উন্নয়নের সাথে সাথে মানুষের মাঝে মানসিক রোগের সমস্যা ধীরে ধীরে প্রকট আকার ধারণ করছে। WHO এক পরিসংখ্যান মতে বর্তমানে পৃথিবীতে ৪৫০ মিলিয়ন মানুষ কোন না কোন মানসিক সমস্যায় ভুগছে। WHO এর তথ্য অনুসারে আত্মহত্যা করা প্রতি একশ জন ব্যক্তির মাঝে ৯০ জন ব্যক্তি মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। আর এসব মানসিক সমস্যার মাঝে অন্যতম হল সিজোফ্রেনিয়া, হ্যালুসিনেশন, অ্যালকোহল নির্ভরশীলতা,গ্রান্ডিউজ ডিলিউসন ইত্যাদি।
আসুন, জেনে নেই কিছু মানসিক রোগের লক্ষণ সম্পর্কে।

সিজোফ্রেনিয়া-

সাধারণত কিশোর বয়সের শেষের দিকে এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এটি বংশগত এবং পরিবেশগত উভয় কারনেই হতে পারে। বংশগত কারনে সিজোফ্রেনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার ২০% থেকে ৪০% সম্ভাবনা থেকে থাকে। এ রোগে আক্রান্ত ব্যক্তি এক কল্পনার জগতে ডুবে থাকে, তারা বাস্তব এবং কল্পনার মাঝে পার্থক্য বুঝতে পারেনা। কল্পনার জগতে অন্য কোন চরিত্র তারা সৃষ্টি করে আনমনে তাদের সাথে কথা বলে। অকারনে টেনশন,অসামাজিক আচরণ ,চিন্তা করার ক্ষমতা কমে যাওয়া এ রোগের লক্ষন।

হ্যালুসিনেশন-

হ্যালুসিনেশনে আক্রান্ত ব্যক্তি অবাস্তব কিছু দেখা বা শোনার দাবি করে থাকে। ভূতপেতে চরম বিশ্বাস এবং বিভিন্ন অদ্ভুত শব্দ শোনার দাবি করেন। কেউ তাদের ক্ষতি করছে, কেউ তার পিছনে লেগেছে ইত্যাদি মেন্টাল ডিসঅর্ডারে ভোগেন।

গ্রান্ডিউজ ডিলিউসন-

নিজের মাঝে বিশেষ শক্তির ক্ষমতা রয়েছে এমন ভেবে থাকা। সকল রোগ নিরাময় করতে পারার ভ্রান্ত বিশ্বাস। পরীক্ষায় ভাল ফল করে দেওয়ার প্রত্যাশা দেওয়া

পারসোনালিটি ডিসঅর্ডার-

কথা বলার সময় শার্টের কলার বারবার টানা, নার্ভাসনেস, নিজেকে সমালোচনার পাত্র ভাবা, অস্থিরতা, ইভটিজিং করা ইতাদি।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.