ভাবুন তো থিম সং বিহীন একটি বিশ্বকাপের কথা! ভাবা যায়? একদমই না। বিশ্বকাপ হবে আর তার মন মাতানো থিম সংয়ে পুরো দুনিয়া মেতে উঠবে না, তা কি হয় নাকি? থিম সং দিয়েই তো এর আমেজ শুরু হয়ে যায় অনেকদিন আগে থেকেই। এবারের ফিফা ২০১৪ বিশ্বকাপের বাকি আর মাত্র কিছুদিন। এর মাঝেই সবাই জেনে গেছে এবারের বিশ্বকাপের থিম সং পিটবুল ফিচারিং জেনিফার লোপেজ ও ব্রাজিলিয়ান শিল্পী ক্লাউডিয়া লেথির "উই আর ওয়ান"। এফএম স্টেশন সহ সব জায়গায়ই বেশ শোনা যাচ্ছে গানটি। তবে এ লেখাটি এবারের থিম সং নিয়ে নয় বরং সর্ব‌কালের সবচেয়ে জনপ্রিয় পাঁচ থিম সং নিয়ে যেগুলো এখনো মানুষের মনে পড়ে যায় বিশ্বকাপ এলেই। চলুন তাহলে দেখে নেয়া যাক সেই অসাধারণ গানগুলোর কথা ও দেখা যাক দারুণ ভিডিও।

"ফুটবল", মেরিলা রোডোউইজ(জার্মা‌নি ১৯৭৪)-

পোলান্ডের শিল্পী মেরিলা রোডোউইজের গাওয়া এই গানটি ১৯৭৪ সালে জার্মা‌নি অনুষ্টিত বিশ্বকাপের থিম সং ছিল। খুব ক্যাচি রিদমের এই গানটি রয়েছে জনপ্রিয় পাচঁটি থিম সংয়ের তালিকায়। নিচে দেওয়া হলো এ গানটির ইউটিউব লিংক

"ইল মুনডিয়ালের",প্ল্যাছিডো ডমিনগো( স্পেন ১৯৮২)-

প্ল্যাছিডো ডমিনগোর এই গানটিই সর্ব‌প্রথম থিম সং যা স্বাগতিক দেশের নিজস্ব শিল্পী দিয়ে গাওয়া। এই গানের মধ্য দিয়ে থিম সং চলে গেছে অন্য উচ্চতায় যা স্পেনকে বেশ ভালোভাবেই প্রতিনিধিত্ব করে। নিচে গানটির ইউটিউব লিংক দেওয়া হলো

"ইউএন'স্টেট ইটালিয়ানা",অ্যাডোআর্ড‌ো বেন্নাতো ও জিয়ান্না ন্যান্নিনি( ইটালি ১৯৯০)-

১৯৯০ সালে ইটালিতে অনুষ্টিত বিশ্বকাপের এ থিম সংটি শুনলে সহজের মনে ধরবে আপনার। দু'জনেই ইটালির জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী।ইংরেজীতে অনুবাদ করে গানটির নামকরন করা হয়েছে "অ্যান ইটালিয়ান সামার"। সম্পূণ ভিন্নভাষার হলেও সুরের মায়ায় বাধা পরবেন সহজেই আর তাই এ গানটি চলে এসেছে এ তালিকায়। ইউটিউব লিংক দেওয়া হলো নিচে।

"ওক্কা ওক্কা",সাকিরা( সাউথ আফ্রিকা ২০১০)-

এ গানটির সাথে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেবার কিছু নেই। মনে হচ্ছে সেদিন মাত্র ২০১০ বিশ্বকাপ ছিল আর তখনই সবার মুখে মুখে ছিল গানটি। ইউটিউবে সবচেয়ে বেশী দর্শ‌নের ভিডিও ছিল এটি। হয়ত এ গানটিকেই অনেকে প্রথম অবস্থানে থাকা উচিত বলবেন কিন্তু সত্তি কথা হচ্ছে ওয়ার্ল্ড‌ কাপের পর আমরা এ গানটি আর শুনি নি। তবে এ গান যেভাবে পুরো বিশ্বে জড় তুলেছিল সেটাও অস্বীকার করার উপায় নেই। নিচে দেওয়া হলো সেই বহুল দর্শ‌িত ইউটিউব লিংটি

দা কাপ অফ লাইফ, রিকি মার্ট‌িন (ফ্রান্স ১৯৯৮)-

এ গানটিই হতে পারে সকল বিশ্বকাপের অফিসিয়াল সং এমনটাই বলেছিলেন ক্রসটেল ভ্যালেন্সিয়া। এ গানটি সত্তিই এক অনবদ্য গান ছিল। এবং বিশ্বকাপের পরেও মার্টি‌ন ১৯৯৯ সালে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডে অনুষ্টানে এ গানটি গেয়েছিলে। ইউরোপসহ বিশ্বের সবকটি দেশে তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছিল দা কাপ অফ লাইফ।
অনবদ্য এ গানের ইউটিউব লিংক হলো-
http://www.youtube.com/watch?v=EiBNdQtJdDE
বিভাগ: ,

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.