আমাদের হাত ও পায়ের পরিচর্যার জন্য প্রায়শই পেডিকিউর মেনিকিউর করে থাকি। প্রতিদিনের কর্মব্যস্ততায় রাস্তাঘাটে চলার ফলে আমাদের হাত পা বেশ নোংরা হয়ে যায়। নখের ভেতরে অনেক ময়লা জমে। সময়ের অভাবে বাসায় এই ময়লা পরিস্কার এবং হাতের ত্বকের পরিচর্যা করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। তাই আমাদের মাঝেমাঝেই পার্লারের শরনাপন্ন হতে হয়। কিন্তু পার্লারে মেনিকিউর করলে তা বেশিদিন স্থায়ী হয় না। তাছাড়া অনেক বেশি খরচ হয় বলে ঘন ঘন পার্লারে যাওয়াও সম্ভব হয় না। এক্ষেত্রে জেনে নেয়া যেতে পারে মেনিকিউরকে দীর্ঘস্থায়ী করতে কিছু টিপস।

১. ত্বকের শুষ্কতা কমানো

শুষ্ক ত্বকে ফেটে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই ত্বকটিকে বিশেষ করে হাতের চামড়াটিকে নরম রাখুন। এর জন্য কিছু ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করুন। এটা ভাল ধরনের ক্রীম বা তেল জাতীয় হতে পারে। তবে কোনো ধরনের ব্র্যান্ড বহির্ভূত তেল ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

২. ছোট করে নখ কাটুন

মোটামুটি ছোট করে নখ কাটুন। কেননা বড় নখে ময়লা জমে বেশি। এছাড়া নখ বেশি বড় হয়ে গেলে তা অসাবধানতাবশত ভেঙ্গেও যেতে পারে বা ত্বকের অন্য কোথাও আঁচড়ও লাগতে পারে। এজন্য হাতের সৌন্দর্য বর্ধনে একটু ছোট করে নখ কাটা ভালো।

৩. বিভিন্ন আকারের নখ

মেয়েদেরকে বিভিন্ন আকারের নখ কাটতে দেখা যায়। এটি যার যার ইচ্ছার উপর নির্ভর করে। কেউ কেউ চতুর্ভূজ আকারের, কেউ কেউ কিছুটা তীক্ষ্ণ নখ রাখতে পছন্দ করেন। তবে উপবৃত্তাকার নখের আকারটিই মেনিকিউরকে দীর্ঘস্থায়ী করতে সহায়তা করে।

৪. মেনিকিউর করার আগে তেল অপসারণ

মেনিকিউর করার আগে আপনার হাতে যদি কোনো ধরনের তেল জাতীয় পদার্থ থেকে থাকে তাহলে তা ভালোভাবে তুলে ফেলুন। তেল জাতীয় পদার্থ থাকলে হাতের ময়লা খুব সহজে ওঠে না। এছাড়া হাতের নখে যদি নতুনভাবে নেইলপলিশ ব্যবহার করতে চান তাহলে রিমোভার দিয়ে আগের নেইলপলিশ ভালোভাবে তুলে ফেলুন তারপওে নতুন নেইলপলিশ লাগিয়ে নিন।

৫. সতর্কভাবে নেইলপলিশ ব্যবহার করুন

আপনার হাতে এমনভাবে নেইলপলিশ ব্যবহার করুন যেন তা নখের বাহিরের অংশে ছড়িয়ে না পড়ে। প্রয়োজনে নখের সামনের বাড়তি অংশ কোনো কিছু দিয়ে ঢেকে রাখুন। এছাড়া মেনিকিউর করার সময় কিছু সচেতনতা অবলম্বন করলে তা অনেকটা স্থায়ী হয়।

৬. হাত পায়ের প্রতিদিন যত্ন নিন

প্রতিদিন হাত পায়ের যত্ন নেবেন। সঠিক পদ্ধতিতে করা পেডিকিউর ২-৪ সপ্তাহ পর্যন্ত এবং মেনিকিউর ১-২ সপ্তাহ পর্যন্ত হাত পা কে পরিষ্কার রাখে।

৭. অবাঞ্ছিত দাগ

যদিও পেডিকিউর এবং মেনিকিউর করলে হাত ও পায়ের অবাঞ্ছিত ছোপ ও দাগ কিছুটা কমে যায়। তারপরও বাড়িতে কিছুটা যত্নের সাথে এগুলোর পরিচর্যা করা উচিৎ। এক্ষেত্রে প্রয়োজনে ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে পারেন।

৮. ভাঙ্গা নখের পরিচর্যা

নখ বড় রাখলে হঠাৎ করে তা ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বিশেষ কওে যারা গৃহস্থালি কাজ কওে থাকেন। আর যাদের নখ একটু হালকা ধরনের তাদের সামান্য আঘাতেই নখ ভেঙ্গে যায়। এক্ষেত্রে ভাঙ্গা নখে নতুন কোনো শেপ আনতে পারেন অথবা নেইলপলিশ ব্যবহার করতে পারেন।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.