যে কোনো সম্পর্কই প্রত্যেকের কাছে বেশ মূল্যবান। ভালোবাসার সম্পর্ক, দাম্পত্য সম্পর্ক কিংবা পারিবারিক সম্পর্ক সবগুলোরই জীবনে মূল্য রয়েছে। কিন্তু আজকালকার সম্পর্ক কেমন যেন ঠুনকো কাঁচের মতো ভেঙে যাওয়ার প্রবণতা বেশি দেখায়। হরহামেশাই প্রেমের সম্পর্কে ভাঙন, বিবাহবিচ্ছেদ এমনকি পারিবারিক সম্পর্কেও চলে আসে ভাঙনের সুর। কিন্তু কেন?
সম্পর্ক অনেক নাজুক হয়। সামান্য কারনেই এতে চলে আসে টান। আর টান বেশি হয়ে গেলে সুতার মতো ছিঁড়ে যাওয়ার ভয় থাকে। তাই সেই কারণগুলোকে যতোটা সম্ভব এড়িয়ে চলা উচিৎ। আজকে দেখে নিন সম্পর্কে ইতি আনতে দায়ী যে ৪ টি প্রধান কারণ সেই কারণগুলোকে।

কাজে ভুল ধরা

মানুষ মাত্রই ভুল করতে পারেন। কেউই একেবারে পারফেক্ট নন। কাজে ভুল হতেই পারে। এবং ভুল হলে ভুল ধরিয়ে দেয়াও উচিৎ। কিন্তু সমস্যা হলো সব সময় এবং বিনা কারণে ভুল ধরার প্রবণতা। অনেকে আছেন যারা এই কাজটি করে থাকেন। কেউ কেউ ইচ্ছে করে আবার কেউ কেউ না বুঝে অবচেতন মনে। কিন্তু এই কাজটি সম্পর্কে আনে ফাটল। কারণ একজন মানুষ যদি তার কাজের বিরুদ্ধে কারণে কিংবা বিনা কারণে প্রতিনিয়ত কথা শুনতে থাকেন তবে তার কাছে অবশ্যই তা ভালো লাগার কথা নয়। একসময় না একসময় তিনি এর বিরোধিতা করবেনই। আর তখনই আসবে সম্পর্কে ভাঙন।

মাত্রাতিরিক্ত প্রতিক্রিয়াশীল হওয়া

যারা বেশি ইমোশনাল বা আবেগী হন তাদের মধ্যে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। তারা খুব সহজে এবং খুব বেশি মাত্রায় কোনো কাজে রিঅ্যাক্ট অর্থাৎ প্রতিক্রিয়া দেখান। এই কাজটিও সম্পর্কে ইতি টানার জন্য বেশ বড় একটি কারণ। অযথা বেশিমাত্রায় রিঅ্যাক্ট করা কারো পক্ষেই বেশিদিন সহ্য করা সম্ভব নয়। কিছুদিনের মধ্যেই সঙ্গী বিরক্ত হয়ে পড়েন। তাই ছোটোখাটো বিষয়গুলোতে বেশি প্রতিক্রিয়াশীল হওয়া বন্ধ করুন। এতে সম্পর্কে টানাপোড়ন আসবে না।

সব সময় সন্দেহ করা

অনেকে বলে থাকেন ভালবাসায় সন্দেহ আসতেই পারে। যেখানে সন্দেহ নেই সেখানে ভালোবাসা নেই। এটি অনেক বড় একটি ভুল কথা। এর উল্টোটা বরং সত্য। যেখানে সন্দেহ থাকে সেখানে ভালোবাসা থাকে না। সন্দেহ কখনো ভালোবাসার প্রতীক হতে পারে না। বরং এতে প্রকাশ পায় আপনি কতোটা নিচ মনোমানসিকতার। আপনি আপনার সঙ্গীকে বিশ্বাস না করতে পারলে তাকে কোন অর্থে ভালোবাসলেন? আপনার অতিরিক্ত সন্দেহ করা আপনার সঙ্গীকে আপনার প্রতি বিরূপ চিন্তা করতে বাধ্য করবে। এতে সম্পর্কে ধরবে ফাটল।

অতিরিক্ত খুঁতখুঁতে স্বভাব

খুঁতখুঁতে মানুষজন সকলের কাছেই বেশ অপছন্দের হয়। ধরুন আপনার পছন্দের মানুষটি আপনার জন্য খেটেখুটে তৈরি হয়ে আসলেন কিংবা কোনো খাবার রান্না করে নিয়ে আসলেন। আপনি তার মধ্যে খুঁত ধরা শুরু করলেন ‘সাজ ভালো হয়নি’, ‘এই শার্ট কেন পড়েছ’, ‘রান্না একেবারেই ভালো লাগছে না’ ইত্যাদি। এখন ভাবুনতো কেউ যদি আপনার সাথে এই কাজটি করেন তবে আপনার কিরকম লাগবে? আপনার সঙ্গীর মন ভেঙে দেয়ার জন্য এই কথাগুলোই যথেষ্ট। তাই দয়া করে সঙ্গীর মনের অবস্থা বুঝুন এবং অতিরিক্ত খুঁত ধরা বন্ধ করুন।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.