খুন ও গুমের বিষয়ে সরকারকে কঠোর হতে হবে এমনটি মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, খুন, গুম গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থার জন্য শুভকর নয়। যারা খুন ও গুমের সাথে জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স দেখাতে হবে। সন্ত্রাসী যত বড়ই হোক, তাকে ধরতে হবে।
শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ইন্সটিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত এ মন্তব্য করেন।
তিনি বলেন, সম্প্রতি খুন-গুমের পেছনে বিরোধী জোটের অংশগ্রহণ ও উসকানি থাকতে পারে। এ জন্য সব মহলকে নিরপেক্ষ অবস্থানে দাঁড়িয়ে ব্যবস্থা নিতে হবে। সরকারের কাছে মানুষের যে প্রত্যাশা, সেটা দেওয়ার জন্য সুশাসনের প্রশ্নে আপসহীন ও অপরাধীর প্রশ্নে জিরো টলারেন্স দেখাতে হবে।
খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে সুরঞ্জিত বলেন, খালেদা জিয়া নিজে আন্দোলনে নেমে সরকার পতনের ঘোষণা দিয়েছেন। খালেদা জিয়া, আপনি কী নিজে আগে আন্দোলনে নামেন নাই? ৫ জানুয়ারি নির্বাচন ঠেকাতে আপনি তো আন্দোলনে নেমেছিলেন। কিন্তু সফল হন নাই। নিষ্ফলতা ছাড়া আপনার ভাগ্যে কিছু জোটে নাই। একটি নির্বাচিত সরকার ফেলে নতুন সরকার আনবেন, এ দুরাশা অতীতেও পূরণ হয় নাই। এখনো হবে না।
জিয়াউর রহমান খুন-গুমের রাজনীতির জনক উল্লেখ করে আওয়ামীলীগের এই নেতা বলেন, খালেদা জিয়া খুন, গুম ও অপহরণের রাজনীতির কথা বলেছেন। আপনাকে মনে রাখতে হবে, এ রাজনীতির শুরু করেছেন জিয়াউর রহমান। এই রাজনীতির বিষবৃক্ষ আপনার দল বপন করেছে। সেই বিষফল দিয়ে সমাজকে দূষিত করেছেন আপনি। তাই আপনাদের মুখে এ কথা শোভা পায় না।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.