দাখিল পরীক্ষায় এবার মাদরাসা বোর্ডে পাসের হার এবং জিপিএ-৫ উভয়ই বেড়েছে। এবছর মাদরাসা বোর্ড থেকে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল ২ লাখ ৩৬ হাজার ৬শ ৩০ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ২ লাখ ১১ হাজার ২শ ৩ জন। এবছর মাদরাসা বোর্ডে পাসের হার ৮৯ দশমিক ২৫ শতাংশ, যা গত বছরের চেয়ে দশমিক ১২ শতাংশ বেশি।
দাখিল পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৯১ দশমিক ৩৪ শতাংশ। এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৪২ হাজার ২৭৬ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে মাদরাসা বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪ হাজার ১৩ জন। এবার গত বছরের চেয়ে ৪ হাজার ৩শ ৪০ জন বেশি শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে।
শনিবার সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফলাফলের কপি তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এরপর মন্ত্রী বেলা ১টার দিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরেন।
এবছর মাদরাসা বোর্ডে প্রথম স্থানে রয়েছে ঝালকাঠি এনএস কামিল মাদরাসা। প্রতিষ্ঠানটির পাসের হার ৯১.৪৯ শতাংশ। ৩শ ২০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৩শ জন। এর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ২শ ৭৪ জন।
সেরা ২০ মাদরাসার তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে গাজীপুরের তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা। এখানে পাসের হার ৮৮.০৪ শতাংশ। ২শ ৬২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ২শ ৬০ জন। জিপিএ ৫ পেছেয়ে ২শ ৫ জন।
তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ছারছিনা দারুস-সুন্নাত তামিল মাদরাসা। এ প্রতিষ্ঠানের পাসের হার ৮৭.০২ শতাংশ। ৫৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৫৪ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৫০ জন পরীক্ষার্থী।
উল্লেখ্য, এবার সারাদেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলে গড় পাসের হার ৯১ দশমিক ৩৪ ভাগ। এ বছর ১৪ লাখ ৩২ হাজার ৭২৭ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। তার মধ্যে ১৩ লাখ ৩৩ হাজার ৩শ ৩১ জন শিক্ষার্থী পাস করেছে। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১ লাখ ৪২ হাজার ২শ ৭৬ জন শিক্ষার্থী।
এবারের পরীক্ষায় সর্বোচ্চ পাসের হার রাজশাহী বোর্ডে। এ বোর্ডে পাসের হার ৯৬ দশমিক ৩৪ ভাগ। এছাড়া ঢাকা বোর্ডে ৯৩ দশমিক ৯৪ ভাগ, দিনাজপুর ৯৩ দশমিক ২৬, যশোর ৯২ দশমিক ১৯, চট্টগ্রাম ৯১ দশমিক ৪০, বরিশাল ৯০ দশমিক ৬৬, কুমিল্লা ৮৯ দশমিক ৯২, সিলেট ৮৯ দশমিক ২৩ ভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডে এবার পাশের হার ৮৯ দশমিক ২৫ ভাগ।

Author Name

যোগাযোগের ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.